ট’নসিলের ব্য’থা দূর করুন মাত্র ১ ঘণ্টায় !

এটি দেখতে মাং’সপিণ্ডের মত মনে হলেও এটি মূলত এক ধরণের টি’স্যু। এই ট’নসিল মুখ,গলা, নাক কিংবা সা’ইনাস হয়ে রো’গজী’বাণু অ’ন্ত্রে বা পেটে ঢুকতে বাধা দিয়ে থাকে। ভা’ইরাসের সং’ক্রমণের কারণে ট’নসিলের প্র’দাহ হয়ে থাকে। সর্দি-কাশির ভা’ইরাসগুলো এই সং’ক্রামণের জন্য দায়ী। ই’নফেকশন বেড়ে গেলে অ্যা’ন্টিবা’য়োটিক খাওয়ার প্রয়োজন পড়ে। তবে ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যা ট’নসিলের ইন’ফেকশন দূর করতে সাহায্য করে।

১। লবণ পানি: গলা ব্য’থা বা ‘ট’নসিল ইন’ফেকশন দূর করার সবচেয়ে প্রচলিত উপায় হলো লবণ পানি। এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে আধা চা চামচ লবণ মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি দিয়ে কুলকুচি করুন। এটি ব্যা’কটেরিয়া ধ’বংশ করার সাথে সাথে গলার ই’নফেকশন দূর করতে সাহায্য করে। এটি তিন ঘন্টা পর পর করুন।

২। আদা চা: এক কাপ পানিতে এক চা চামচ আদা কুচি দিয়ে ১০ মিনিট জ্বাল দিন। প্রতিদিন এটি পান করুন। আদার অ্যান্টি ব্য’কটেরিয়াল উপাদান ইন’ফেকশন ছড়াতে বাধা প্রদান করে। এর সাথে সাথে ব্য’থা কমিয়ে দিয়ে থাকে।

৩। লেবুর রস এবং মধু: ২০০ মিলিগ্রাম গরম পানিতে লেবুর রস, এক চা চামচ মধু, আধা চা চামচ লবণ ভাল করে মিশিয়ে নিন। যতদিন গলা ব্যথা ভাল না হয় তত দিন পর্যন্ত এটি ব্যবহার করুন। ট’নসিলের স’ম্যসা দূর করার জন্য এটি বেশ কার্যকরী।

৪।মেথি: মেথি টন’সিলের ব্য’থা রোধ বেশ উপকারী। এক লিটার পানিতে তিন চা চামচ মেথি দিয়ে জ্বাল দিন। এটি ৩০ থেকে ৩৫ মিনিট জ্বাল দিতে থাকুন। কুসুম গরম থাকা অবস্থায় এটি দিয়ে কুলকুচি করুন। মেথি গলা ফু’লা এবং ব্য’থা কমিয়ে দেবে।

৫। গ্রিন টি: এক কাপ গরম পানিতে এক চা চামচ গ্রিন টি পাতা দিয়ে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এবার এটি আস্তে আস্তে চুমুক দিয়ে চা পান করুন। দিনে ৩ থেকে ৪ কাপ এই চা পান করুন। সবুজ চায়ে অ্যা’ন্টি অ’ক্সিডেন্ট রয়েছে যা সব রকম ক্ষ’তিকর জী’বাণু ধ্বং’স করে দেয় এবং টন’সিলের ব্য’থা ধীরে ধীরে কমিয়ে থাকে।