এই সময়ে জ্বর হলে তৎক্ষণাৎ যা করবেন

ক’রোনাভা’ইরাসের সং’ক্রমণ দিন দিন বেড়েই চলেছে। এর মধ্যেই মৃ’ত্যুর মিছিলে নাম লেখা হয়েছে অনেকেরই। তাইতো সবাই এখন বেশ তৎপর। ক’রোনায় আ’ক্রান্ত হওয়ার প্রথম ল’ক্ষণ। তাই সাধারণ জ্ব’র হলেও এই সময় অবহেলা করা যাবে না।

তাছাড়া ডে’ঙ্গু, চি’কুনগু’নিয়া, টা’ইফয়েড, ইন’ফ্লুয়ে’ঞ্জা, ব্যা’কটেরি’য়াজনিত নি’উমোনিয়া ইত্যাদি বছরজুড়েই থাকে। তাই বলে জ্ব’র হলে বা অন্য কোনো উপ’সর্গ দেখা দিলে ক’রোনা হয়নি মনে করে ঘরে বসে থাকা একদম ঠিক হবে না। এই সময় জ্ব’র হলে প্রথমেই ক’রোনা স’ন্দেহ করতে হবে।

গুরুত্বের সঙ্গে নিতে হবে আ’ক্রান্ত ব্যক্তির যে কোনো উ’পসর্গ। তাই চলুন জেনে নেয়া যাক এই সময় জ্ব’র হলে তৎ’ক্ষণাৎ যা করবেন-

জ্ব’র বা উ’পসর্গ হলে নিজেকে প্রথমে অন্যদের থেকে আলাদা করে ফেলুন। আপনার করোনা হয়নি, এমন ধারণা থেকে প্রিয়জনদের বিপদে ফেলবেন না।

জ্ব’র ১০০ ডিগ্রি ফা’রেনহাইটের বেশি, কাশি, গ’লাব্য’থা, অ’রুচি ও স্বা’দহীনতা, ডা’য়রিয়া ইত্যাদি হলো ক’রোনার উ’পসর্গ। তবে মনে রাখতে হবে, সব সময় সবার যে একই রকম উপ’সর্গ থাকবে, তা–ও নয়। কারো হয়তো কেবল জ্ব’র, শ’রীর ব্য’থা, শরীর ম্যা’জম্যাজ থাকতে পারে। কাজেই যে কোনো জ্ব’রই গু’রুত্বের সঙ্গে নিতে হবে। দ্রুত ক’রোনা পরীক্ষা করতে হবে।

ক’রোনা পরীক্ষার সময় র’ক্তের সিবিসি, ডে’ঙ্গু এনএ’সওয়া’ন অ্যা’ন্টিজেন, র’ক্তের কালচার, সি’আরপি, বুকের এ’ক্সরে এসবও করান। এতে বারবার ডা’য়াগন’স্টিক সেন্টার বা হাসপাতালে দৌড়াতে হবে না।

যেখানে পরীক্ষা করাবেন, সেখানে নিজের উ’পসর্গগু’লোর কথা জানান। এতে সং’ক্রমণ ছড়ানোর ঝুঁ’কি কমবে। কিছুতেই তথ্য গো’পন করবেন না।

ক’রোনা পরী’ক্ষার সিরিয়াল ও রি’পোর্ট পেতে বেশ কয়েক দিন লেগে যেতে পারে। কেবল এই পরীক্ষাই শেষ কথা নয়; ক’রোনা পরীক্ষার ফলাফল ৩০ শতাংশ পর্যন্ত ফলস নে’গেটিভ আসতে পারে। এক্ষেত্রে চিকিৎ’সকেরা এ’ক্স–রে, সিআরপি, সিবিসিসহ কিছু পরীক্ষার রি’পোর্ট মিলিয়ে সি’দ্ধান্ত নিতে পারবেন। কাজেই চি’কিৎসকের পরামর্শ নিন আগে।

জ্বর এলে নিজে থেকেই ওষুধ খেয়ে ফেলবেন না। বিশেষ করে অ্যা’ন্টিবায়োটিক তো নয়ই। মনে রাখবেন, আগে ও’ষুধ খেয়ে ফেললে অনেক সময় রোগ শ’নাক্ত করতে স’মস্যা হয়।