বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে মা’রণ রোগের ই’নজেকশন আ’টক করল বিএসএফ

ভারতের সী’মান্তর’ক্ষী বাহিনী বিএসএফ বাংলাদেশ-ভারত সী’মান্তে মা’রণ রো’গের ই’নজেকশনের একটি চালান আ’টক করেছে। ভারতের একটি সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, ই’নজেকশনের ওই চালান বাংলাদেশে পা’চার হচ্ছিল। উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাট মহকুমার বসিরহাট থানার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের ঘোজাডাঙ্গা দক্ষিণপাড়ায় চালানটি আ’টক করা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল মঙ্গলবার এক ওষুধ পা’চারকারী জী’বনদায়ী রোগের ৪৯টি ইন’জেকশন পা’চারের উ’দ্দেশ্যে ঘোজাডাঙা সীমান্তের দক্ষিণপাড়ায় সাইকেলে করে নিয়ে যাচ্ছিলেন। সেই সময় ১৫৩ নম্বর ব্যাটালিয়নের সী’মান্তর’ক্ষী বাহিনী ওই সাইকেলআরোহীকে দাঁড়াতে বললে তিনি সাইকেল থেকে নেমে ই’নজেকশনের ব্যাগ রা’স্তাতেই ফেলে পালিয়ে যাযন।’

এরপর তার ব্যা’গ থেকে উ’দ্ধার হয় ৪৯টি জী’বনদায়ী রো’গের ই’নজেকশন। উ’দ্ধার হওয়া ওই প্রতিটি ই’নজেকশনের বাজার মূল্য প্রায় ১৪ হাজার টাকা করে। সব মিলিয়ে ৪৯টি ই’নজেকশনের বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ৭ লক্ষ টাকা।

মা’রণ রো’গের ই’নজেকশনগুলো বাংলাদেশে পা’চারের চেষ্টা চালানো হচ্ছিল। সেই সময় ওই সাইকেল আরোহীকে দেখে সী’মান্তর’ক্ষী বাহিনীর স’ন্দেহ হয়। এরপর তাকে জি’ঞ্জাসাবাদের জন্য থামতে বললে তিনি ওষুধগুলো ফেলে পালিয়ে যান।। এরপর সাইকেলের কেরিয়ার থেকে ৪৯টি ই’নজেকশনের বা’ক্স উ’দ্ধার হয় ।

এ ঘ’টনায় বা’জেয়াপ্ত করা হয়েছে সাইকেল। তবে পাচারকারী প’লাতক। উ’দ্ধার হওয়া ই’নজেকশনগুলো ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তে শুল্ক দপ্তরের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। ইনজেকশনগুলো বাংলাদেশ তিনগুণ দামে বিক্রি হতো।

সূত্র: কলকাতা’