কঠিন সমীকরণের সামনে দাড়িয়ে আজ মুখোমুখি মুম্বাই-কলকাতা

অঙ্কটা বেশ জটিল। ২৩ মে–র এলিমিনেটর ও ২৫ মে–র কোয়ালিফায়ার তো এসে গেছে ইডেনে। কিন্তু নাইট রাইডার্স কি যেতে পারবে প্লে–অফে?‌ থাকতে পারবে প্রথম ৪ দলের মধ্যে?‌ এই মুহুর্তে কলকাতার ১০ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট। লিগ টেবিলে আছে ৪ নম্বরে। প্লে–অফ প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ (‌১০ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট)‌, চেন্নাই সুপার কিংস (‌১০ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট)‌। ৩ নম্বরে থাকা কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবেরও প্রথম চারে থাকা প্রায় নিশ্চিত। তাদের পয়েন্ট ৯ ম্যাচে ১২।এই কঠিন সমীকরনের সামনে দাড়িয়ে আজ মুম্বাইয়ের মুখোমুখি হচ্ছে কলকাতা।

বাকি চারটে ম্যাচ জিতলে প্লে–অফ নিশ্চিত হয়ে যাবে দীনেশ কার্তিকদের।আর যদি মুম্বাই বাকি চারটি ম্যাচ জিতে যায় তবে প্লে অফ নিশ্চিত হবে মুম্বাইয়ের। ৮ দলের আইপিএলে ১৬ পয়েন্টকে ‘‌সেফ জোন’‌ হিসেবে ধরা হয়। বাকি ৪টি ম্যাচ জিতলে কলকাতা পৌঁছাবে ১৮–য়।আর মুম্বাই যদি জিতে যায় তবে তাদের পয়েন্ট হবে ১৬। সেক্ষেত্রে প্রথম দুই এর মধ্যেও চলে আসতে পারেন এই দুই দলের একটি।

কারণ হায়দরাবাদ, চেন্নাই কিংবা পাঞ্জাব তাদের বাকি সব ম্যাচ জিতবে তার গ্যারান্টি কোথায়?‌ তবে এই ৩ দলই যে ছন্দে রয়েছে সে বিষয়ে সন্দেহ নেই। বাকি থাকল চার নম্বর জায়গাটা। যেখানে লড়াই কলকাতার সঙ্গে মুম্বইয়ের। আরসিবি, দিল্লি কিংবা রাজস্থান রয়্যালসকে খরচের খাতায় এখনই ফেলা ঠিক নয়। তবে এবারের আইপিএলে তিন দলকেই দুঃস্বপ্ন তাড়া করে বেড়াচ্ছে।

ইডেনে আজ (বুধবার) কলকাতার সামনে মুম্বাই। আরব সাগরের তীরের দলটি বরাবরই কলকাতার শক্ত গাঁট। রবিবারই ওয়াংখেড়েতে হেরে এসেছে কলকাতা। গতবারের চ্যাম্পিয়নরা এই মুহূর্তে আছে কলকাতার ঠিক পরে। অর্থাৎ পাঁচে। পয়েন্ট ১০ ম্যাচে ৮। কলকাতাকে প্লে–অফে যেতে হলে ইডেনে হারাতেই হবে মুম্বইকে। এই ম্যাচটাই হয়ত কলকাতার পক্ষে প্লে–অফ নির্ণায়ক ম্যাচ হতে চলেছে। জিতলে কলকাতা ১১ ম্যাচে ১২ পয়েন্টে চলে যাবে। হারলে মুম্বই আবার ছুঁয়ে ফেলবে কলকাতাকে। বুধবারের পর কলকাতার ম্যাচ রয়েছে শনিবার পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে। যারা ইডেনে হারিয়ে গেছে কলকাতাকে। তারপর ১৫ মে আবার ইডেনে রাজস্থান ম্যাচ। চারটি ম্যাচের মধ্যে এই একটাই তুলনামূলক সহজ ম্যাচ রয়েছে। ১৯ মে শেষ ম্যাচ আবার হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে। সেটাও আবার অ্যাওয়ে। ভুললে চলবে না উইলিয়ামসন বাহিনীও কিন্তু ইডেনে জিতে গিয়েছিল।

প্লে–অফে যেতে গেলে ইডেনের দুটি ম্যাচই জেতা চাই কলকাতার। সঙ্গে ১ টা অ্যাওয়ে ম্যাচ জিততে হবে। বুধবারের পর মুম্বইয়েরও হাতে থাকবে ৩টি ম্যাচ। যার ২টি হোম। যেখানে খেলতে হবে রাজস্থান ও পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে। অ্যাওয়ে ম্যাচটা দিল্লির বিরুদ্ধে। মুম্বইয়ের প্রতিপক্ষগুলো কিন্তু তুলনামূলক সহজ থাকছে কলকাতার থেকে। তাই ইডেনে বদলার সঙ্গে প্লে–অফের রাস্তাটাও পরিষ্কার করে ফেলতে হবে কার্তিক বাহিনীকে।