এবার মাশরাফির এমপি পদে নির্বাচন নিয়ে যা বললেন তারা বাবা

আলোচনাটা মূলত শুরু হয় আজ পরিকল্পনামন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন থেকেই। পরিকল্পনা মন্ত্রী নজেই জানিয়ে দিলেন আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহন কতে যাচ্ছেন মাশরাফি।সাকিবের নাম অবশ্য মন্ত্রী নিজ থেকে বলননি। সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে জানান সাকিবের নামও। এই ব্যাপারে অবশ্য মাশরাফি নিজে কিছু না বললেও মুখ খুলেছেন তার বাবা গোলাম মর্তুজা। তিনি বলেন ,’ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি তাকে মনোনয়ন দেন তাহলে মাশরাফির না বলার সুযোগ নেই।’

ক্রিকেটার মাশরাফি বিনমর্তুজা আগামী সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল।বিসিবির সাবেক সভাপতি ও আইসিসির সাবেক সভাপতি মুস্তফা কামাল মঙ্গলবার ঢাকার শেরেবাংলা নগরে একনেকের সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথায় এই ইঙ্গিত দেন।তিনি বলেন, “মাশরাফি নির্বাচন করতে পারেন, করলে আপনারা ভোট দেবেন।”

মাশরাফি কি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাচ্ছেন- প্রশ্ন করলে মুস্তফা কামাল বলেন, “আমি কি বলেছি তিনি আওয়ামী লীগ থেকে করবেন? বিএনপি থেকেও তো করতে পারেন। আপনারা তাকে সহযোগিতা করবেন, ভোট দেবেন।”ফরিদপুরের মধুখালী থেকে মাগুরা শহর পর্যন্ত রেলপথ স্থাপন নিয়ে কথা বলার এক পর্যায়ে দুই ক্রিকেটার মাশরাফি ও সাকিব আল হাসানের নির্বাচনের প্রসঙ্গটি আসে।

টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব মাগুরা থেকে নির্বাচন করবেন কি না- এ প্রশ্নে মুস্তফা কামাল বলেন, “তিনিও করতে পারেন। তারও তো বয়স হয়েছে। তবে আমি ৪৮ বছর বয়সে (প্রথম)নির্বাচন করেছিলাম।শেখ হাসিনার সঙ্গে মাশরাফি বিন মর্তুজা ও সাকিব আল হাসান মাশরাফি সম্পর্কে মুস্তফা কামাল বলেন, “তিনি ভালো মানুষ। তিনি তার নিজস্ব সিদ্ধান্ত নিয়ে চলেন।”

“আমার দলে খেলে প্রথম বছর আমাকে চ্যাম্পিয়ন করেছে, পরের বছর লাড্ডু দিয়েছে,” রসিকতা করে বলেন তিনি।ক্রীড়া সংগঠক মুস্তফা কামাল বিপিএলের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের মালিকানায় রয়েছেন। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি দুই মৌসুম ওই দলটিতে খেলেছেন।মাশরাফি ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত খেলা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।সেক্ষেত্রে এবছর ভোট করতে তিনি চাইবেন কি না- প্রশ্ন করলে মুস্তফা কামাল বলেন, “আমিও তো খেলার সঙ্গে রয়েছি, নির্বাচনও করেছি।”

নড়াইলের সন্তান মাশরাফি ক্রিকেটের পাশাপাশি নিজের এলাকায় জনকল্যাণমূলক কাজেও নিজেকে ইতোমধ্যে জড়িয়েছেন।গত বছর তিনি গড়ে তোলেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান। এর উদ্দেশ্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে নড়াইলের উন্নয়ন করা।কালিয়া উপজেলা ও নড়াইল সদর উপজেলার একাংশ নিয়ে গঠিত নড়াইল-১ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের শেখ কবিরুল হক (মুক্তি)।

আর লোহাগড়া উপজেলা ও নড়াইল সদর উপজেলার বাকি অংশ নিয়ে গঠিত নড়াইল-২ আসনের বর্তমানে সংসদ সদস্য ওয়ার্কার্স পার্টির এস কে হাফিজুর রহমান।স্থানীয়রা জানান, মাশরাফি ভোটে দাঁড়ালে বিএনপি নয়, আওয়ামী লীগ থেকেই দাঁড়াবেন, এটা নিশ্চিত প্রায়। কারণ, তার পরিবার আওয়ামী লীগপন্থী হিসেবেই পরিচিত।

এদিকে খেলার মাঠের মাঠের জনপ্রিয়তা আর রাজনীতির মাঠের জনপ্রিয়তা এক নয় বলে মনে করে রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টরা। তাদের মতে মাশরাফি যখন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন নিবেন তখন সে আওয়ামী লীগের লোক হিসাবেই ভোটারদের কাছে পরিচিত হবেন ভোটের মাঠে। সে ক্ষেত্রে আওয়ামী বিরোধী রাজনৈতিক দলের অনেকে তাকে খেলার মাঠে ভালোবাসলেও রাজনীতির মাঠে পছন্দ করবে না বলে মন্তব্য করেন অনেকে। এই ব্যাপারে সোশ্যাল মিডিয়াতে মাশরাফি বেশ সমালোচিত হোন।