জামায়াত- শিবিরের কর্মীরা দাড়ি ছোট রাখে ও পাঞ্জাবী পরেনা কেন(শেষ পর্ব)

আর হ্যা দাড়ি টুপি জুব্বা এগুলো পড়লেই যদি আল্লাহর ওলি হয়ে জান্নাতে যাওয়া যেত তাহলে সবার আগে জান্নাতে যাওয়া উচিত আব্দুল্লাহ বিন উবাইর কারন নবীজি যে জুব্বা পড়তেন সেই একই রকম জুব্বা পড়তেন আব্দুল্লাহ বিন উবাই শুধু তাই নয় তার মুখেও ছিলো লম্বা দাড়ি। আবু জাহেল, উতবা, শায়বা এদের মুখেও লম্বা দাড়ি ছিলো এরা সবাই জুব্বা পড়তেন তাহলে কি এরাও জান্নাতি হবে?? বাংলাদেশের দেওয়ান বাগী, কুতুব বাগী, রাজার বাগী আরো শত শত ভন্ড আলেম আছে যাদের মুখে দাড়ি গায়ে জুব্বা এরাও কি তাহলে জান্নাতে যাবে?

কই একদিনও তো গলা উচু করে সরকার কে উদ্দেশ্য করে বলতে পারলেন না যে এরা কাফের এই ভন্ডদের আস্তানা গুড়িয়ে দিন এখানে কেন আপনার ফতুয়া নেই?? শুধু তাই নয় কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজার হাজার ছেলে মেয়েরা জিনা ব্যভিচার অশ্লীল কাজে লিপ্ত থাকে সর্বদা এমনও নজির আছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেরা মদ দিয়ে সকালে ব্রাশ করে কুলি করে কই এদের বিরুদ্ধে তো আপনার কোন ফতুয়া নেই? অথচ একটা ছেলে কলেজ /বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে, পাঁচ ওয়াক্ত জামাতে নামাজ পড়ছে, প্রতিদিন অর্থসহ কুরআন তেলাওয়াত করছে, হাদিসের কিতাব অধ্যয়ন করছে, ইসলামী সাহিত্য অধ্যয়ন করছে, শেষ রাতে তাহাজ্জুদের সলাতে চোখের পানি ফেলে বাবা-মা, ভাই বোন, আত্মীয় স্বজনের জন্য, দেশের সার্বিক কল্যানের জন্য যে ছেলেটা রবের কাছে প্রার্থনা করছে সেই ছেলেটাকেই আপনি কাফের ফতুয়া দিয়ে দিলেন?

দাড়ি টুপি জুব্বা এগুলো নবীজির সুন্নাত কিন্তু ফরজে আইন এমন কোন বিষয় নয় সুতরাং শিবির এটা স্বীকার করে যে এর কারনে তাতের গুনাহ হচ্ছে তবে এটাও সঠিক যে কোন বড় কিছু পাওয়ার জন্য সামান্য কিছু ভুল সেটা ক্ষমার যোগ্য আর শিবিরের ছেলেরা সেটাই করছে। এমনকি সহিহ কোন হাদিস দ্বারা প্রমানিত নয় যে, দাড়ি,টুপি, জুব্বা না পড়লে সে কাফের, জান্নাতে যেতে পারবেনা, আল্লাহ এর জন্য পাকরাও করবেন, কিয়ামতের দিন এর জন্য জবাব দিহিতা করতে হবে, ফেরেশতারা কবরে এ সম্পর্কে প্রশ্ন করবেন এমন দলিল কি আপনি দিতে পারবেন?? তাহলে কেন শিবিরের বিরুদ্ধে ফতুয়া দেন?

আল্লাহ মানুষের বাহ্যিক দিক দেখে বিচার করেনা আল্লাহ দেখেন মানুষের কলবের ভিতরটা এবং সে অনুপাতেই তিনি বিচার করেন। সুতরাং শিবিরের বিরুদ্ধে ফতুয়া না দিয়ে তাদের সাথে মিলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এ দেশে কুরআনের আইন প্রতিষ্ঠা করুন, এই কাফেলায় শরিক হয়ে ইসলামের খেদমত করুন। আশা করি ভুল ত্রুটি ক্ষমা করবেন কারন সত্যটা বুঝানোর জন্য একটু কঠোর কথা বলতে হয়েছে তবে এটাকে খারাপ মনে না করে সত্যটা অনুধাবন করুন। আল্লাহ আমাদের সকলকে সত্য বুঝার তাওফিক দান করুক।(আমিন)।Sonarbangla24