শেন ওয়াটশনের টর্নেডো সেন্সুরীতে হায়দ্রাবাদকে হারিয়ে আইপিএলের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই

ধাওয়ান-উইলিয়ামসনরা দারুণ শুরু এনে দিয়েছিলেন সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে। শেষ দিকে ইউসুফ পাঠান ও ব্রাথওয়েটের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭৮ রানের বড় সংগ্রহ গড়েছে দলটি।জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়েছিল না চেন্নাইয়ের। তারা দলীয় ১৬ রানে ওপেনার ফাফ ডুপ্লেসিসের উইকেট হারায়। তিনি মাত্র ১০ রান করে সন্দ্বীপ শর্মার বলে কট এন্ড বোল্ড আউট হন।

দ্বিতীয় উইকেটে দারুণ এক জুটি গড়ে এই প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেন শেন ওয়াটসন ও সুরেশ রায়না। এরপর শেন ওয়াটসনের দুর্দান্ত সেঞ্চুরির উপর ভর করে ৮ উইকেটের বিশাল জয় দিয়ে এবারের চ্যাম্পিয়ন হয় চেন্নাই।

বিস্তারিত: ২ বছর পর অাইপিএলে ফিরে এনে অাবারো জাদু দেখালেন ধনি। চেন্নাইকে অাবারো শিরোপা দিলেন তিনি। শেন ওয়াটসের সেঞ্চুরিতে ৮ উইকেটে অাইপিএলের তৃতীয় শিরোপা জিতলো হায়দ্রাবাদ।ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ফাইনাল ম্যাচে আজ চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ১৭৮ রান সংগ্রহ করেছে সাকিব আল হাসানের দল চেন্নাই সুপার কিংস। সুতরাং, চ্যাম্পিয়ন হতে হলে চেন্নাইকে করতে হবে ১৭৯ রান।

১৭৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় চেন্নাই। ডু প্লুসিসকে ক্যাচ অাউট করে সন্দিপ শার্মা। কিন্তু এরপরেই ব্যাটিং তান্ডব চালায় ওয়াটসন। ৫৭ বলে ১১৭ রানে অপরাজিত থেকেই মাঠ ছাড়েন তিনিরবিবার মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের পক্ষে ৩৬ বল খেলে ৪৭ রান করেন কেন উইলিয়ামসন। ২৬ রান করেন শিখর ধাওয়ান। ১৫ বল খেলে ২৩ রান করেন সাকিব আল হাসান। ২৫ বল খেলে ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন ইউসুফ পাঠান।

১১ বল খেলে ২১ রান করেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। চেন্নাই সুপার কিংসের পক্ষে করন শর্মা ১টি, ডোয়াইন ব্রাভো ১টি, রবীন্দ্র জাদেজা ১টি, লুঙ্গি এনগিদি ১টি ও শারদুল ঠাকুর ১টি করে উইকেট শিকার করেন।ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১৩ রানে প্রথম উইকেট হারায় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার শ্রীভৎস গোস্বামী। এরপর শিখর ধাওয়ান ও উইলিয়ামসন ৫১ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। দলীয় ৬৪ রানে রবীন্দ্র জাদেজার বলে বোল্ড হন শিখর ধাওয়ান।

এরপর কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে জুটি বাঁধেন সাকিব আল হাসান। দুজনে মিলে ৩৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। দলের রান যখন ১০১ তখন করন শর্মার বলে স্ট্যাম্পিং হন কেন উইলিয়ামসন। দলীয় ১৩৩ রানে ডোয়াইন ব্রাভোর বলে সুরেশ রায়নার হাতে ধরা পড়েন সাকিব আল হাসান। দলীয় ১৪৪ রানে দীপক হুদাকে সাজঘরে ফেরান লুঙ্গি এনগিদি। শারদুল ঠাকুরের করা ইনিংসের শেষ ওভারের শেষ বলে আম্বাতি রায়ডুর হাতে ক্যাচ হন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট।