রোজার কাফফারা আদায়ের নিয়ম

কোনো ব্যক্তি বিনা ওজরে কিংবা শরিয়তসম্মত কোনো কারণ ছাড়া রোজা ভঙ্গ করলে তার ওপর কাফফারা আদায় করা ওয়াজিব। রোজার কাফফার তিনটি পদ্ধতির যে কোনো একটি পদ্ধতিতে আদায় করলে তা আদায় হয়ে যাবে। রোজা কাফফারা আদায়ের নিয়ম তুলে ধরা হলো-

০১. একটি রোজা কাফফারা একজন গোলাম বা দাস মুক্ত করা। বর্তমানে দাস প্রথার প্রচলন নাই বিধায় অবশিষ্ট দুই পদ্ধতিতে রোজার কাফফারা আদায় করতে হবে।

০২. রমজানের একটি রোজার জন্য ধারাবাহিকভাবে দুই মাস রোজা রাখতে হবে। এ দুই মাসের মধ্যে অসুস্থতার জন্য যদি কোনো একদিন রোজা নষ্ট হয় তবে আবার নতুন করে রোজা রাখা শুরু করতে হবে। তবে মহিলাদের ক্ষেত্রে মাসিক বা ঋতুস্রাবের কারণে যদি ধারাবাহিকতা নষ্ট হয় তবে তাতে অসুবিধা নেই। পবিত্রতা অর্জনের পর কাফফারার বাকি রোজাগুলো আদায় করে নিবে।

০৩. ষাট জন মিসকিনকে মধ্যম পর্যায়ের দুই ওয়াক্ত খানা খাওয়ানো। অথবা একজন মিসকিনকে দুই ওয়াক্ত করে ষাট দিন খানা খাওয়ানো।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে অযথা বিনা কারণে রোজা নষ্ট করা থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।