এই যে কলকাতা নাইট রাইডার্স, আমি সাকিব আল হাসান

গতকাল কার্তিক বোল্ড হওয়ার সাকিবের যে উল্লাস সেটা লিখে বোঝানোর সাধ্য কার! সগর্জনে হাত হাওয়ায় ওড়ালেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তারপর বাঁ-হাতে শূন্যে ঘুষি, জেদ যেন ঠিকরে বের হচ্ছিল! শূন্যে চালানো সাকিবের ওই ঘুষি হয়তো বলছিল, এই যে কলকাতা নাইট রাইডার্স, আমি সাকিব আল হাসান।

দীর্ঘ সাত বছর কলকাতার হয়ে আইপিএল খেলেছেন বাংলাদেশি তারকা। কিন্তু সাত বছরে যথাযথ মূল্যায়ন পেয়েছেন কমই। কলকাতায় থাকতে অধিকাংশ সময়ই বেঞ্চে বসে কাটাতে হয়েছে সাকিবকে। গত মৌসুমে তো বাংলাদেশ অধিনায়ককে মাত্র একটা ম্যাচ খেলার সুযোগ দিল কলকাতা। তারপর সাত বছর পর সাকিব যখন অন্য একটা ক্লাবে গেল সামান্য শুভেচ্ছা বার্তাও জোটেনি কলকাতার পক্ষ থেকে।

ওই দলের বিপক্ষে তাদের ঘরে গিয়ে যদি এমন অসাধারণ পারফর্ম করা যায় তাহলে ওভাবে ঘুষি চালিয়ে উদযাপন করাই যায়।

রশিদ খানের দুর্দান্ত ক্রিকেটের সৌজন্যে কলকাতাকে ১৪ রানে হারিয়ে কাল একাদশ আইপিএলের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে হায়দরাবাদ। কাল গল্প করার মতো ক্রিকেটই খেলেছেন রশিদ। আট নম্বরে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১০ বল খেলে ২টি চার ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৩৪ রানের দারুণ কার্যকারী এক ইনিংস খেলেছেন আফগান তরুণ। যাতে ১৭৪ রানের চ্যালেঞ্জিং একটা স্কোর দাঁড় করাতে পেরেছে হায়দরাবাদ।

পরে চার ওভার বোলিং করে মাত্র ১৯ রান খরচায় ক্রিস লিন, আন্দ্রে রাসেল ও রবিন উথাপ্পাকে ফিরিয়েছেন। ফিল্ডিংয়ে দুটি ক্যাচও নিয়েছেন আফগান তরুণ। নিঃস্বন্দেহে ম্যাচের সেরা পারফরমার তিনি। আর দ্বিতীয় সেরা? অবশ্যই সাকিব আল হাসান।