সাঈদীর ওয়াজ শুনতে চান খালেদা

কারাগারে বন্দি বেগম খালেদা জিয়া রোজার মধ্যে যুদ্ধাপরাধে আজীবন কারাদন্ডে দণ্ডিত জামাত নেতা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর ওয়াজ শুনতে চেয়েছেন। কারাসূত্রে এই খবর পাওয়া গেছে। কারাগারে রমজান মাসে, বন্দীদের কোরআন তেলাওয়াত, ইসলামী গান ইত্যাদি শুনতে দেওয়া হয়। কারাবন্দীদের ইচ্ছানুযায়ী তাদের টাকায় এসব তেলওয়াত ও ইসলামী গান জেল কর্তৃপক্ষ কিনে দেন। সেই হিসেবে, জেল কর্তৃপক্ষ জিয়ার কাছেও জানতে চেয়েছিল, তিনি এরকম কোন কিছু শুনতে চান কিনা।

জবাবে বেগম জিয়া বলেছেন, তিনি সাইদীর ওয়াজ শুনতে চান।উল্লেখ্য যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর অধিকাংশ ওয়াজই কুরুচিপূর্ণ এবং নারীর জন্য অবমাননাকর বলে অভিযোগ রয়েছে। নারীদের সম্পর্কে অশালীন মন্তব্য করার জন্য তাঁর ওয়াজের বিরুদ্ধে দেশের নারী সমাজ বিভিন্ন সময় প্রতিবাদ করেছিল।

বাংলা ইনসাইডার

‘তখন পেরেছি বয়স ছিল, এখন পারব না’

বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চেয়েছিল বিএনপি। কিন্তু এভাবে তাকে মুক্ত করা সম্ভব নয়। কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।আজ শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক প্রতিবাদ সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এ সব কথা বলেন। কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারীর মুক্তির দাবিতে এই সভার আয়োজন করে শফিউল বারী মুক্তি পরিষদ।

তিনি বলেন, যখন বয়স ছিল তখন স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন করেছি, আইয়ুব বিরোধী আন্দোলন করেছি। কিন্তু এখন পাবর না। এখন ছাত্রদল-স্বেচ্ছাসেবক দলকে আন্দোলন করতে হবে।প্রধান অতিথির বক্তব্যে নজরুল ইসলাম খান বলেন, মিথ্যা অভিযোগে সাজা পেয়ে খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর তার জামিন নিয়ে টালবাহানা শুরু হল। তিনি জামিন পেলেন, কিন্তু সরকার পক্ষ চেম্বার জজের কাছে চলে গেলেন। সময় নেওয়া হলো অনেক। এক শুনানি থেকে আরেক শুনানির দূরত্ব অনেক। অবশেষে জামিন হলো।

তবে এর আগেই আরেকটি মামলায় ‘শ্যেন অ্যারেস্ট’ দেখানো হলো। আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে বেগম জিয়াকে মুক্ত করার চেষ্টা হয়েছে এবং হচ্ছে, কিন্তু না। এভাবে তাকে মুক্ত করা সম্ভব নয়।খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে কঠোর আন্দোলনের প্রয়োজন উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা দলের নেতা-কর্মীদের কার্যকর আন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘জনতা পারে না এমন কোনো কাজ নেই। আমরা ৯০ এর স্বৈরাচারী আন্দোলন করেছি। আইয়ুব খানের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছি। আমরা তখন পেরেছি কারণ তখন আমাদের আন্দোলনের বয়স ছিল। তবে এখন যদি করতে বলেন তাহলে পারব না।

এখন আন্দোলন করতে হবে স্বেচ্ছাসেবক দল ও ছাত্রদলকে।’বিএনপির এই নেতা বলেন, সবারই ধৈর্যের সীমা থাকে। এই দেশ এখন আন্তর্জাতিকভাবে স্বৈরতান্ত্রিক দেশে পরিণত হয়ে গেছে। ৭৩ বছর বয়সী খালেদা জিয়া আজ কারাগারে যথেষ্ট অসুস্থ। ডাক্তাররা বলেছেন-এমন অবস্থায় থাকলে তিনি পঙ্গু হয়ে যেতে পারেন। অন্ধ হয়ে যেতে পারেন। সরকারি চিকিৎসকেরা তাঁর উন্নত চিকিৎসার সুপারিশ করার পরও সরকার সেটা আমলে নেয়নি।

এই স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।শফিউল বারী মুক্তি পরিষদ আহ্বায়ক ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ প্রমুখ।

প্রথমআলো