২৩ জন বাংলাদেশি কে ধরে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ-জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর

গত ৫ ফেব্রুয়ারি রাতে ভারতীয় বিএসএফ কর্তৃক বাংলাদেশের ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া সীমান্ত থেকে ২৩ জন বাংলাদেশি নাগরিককে ধরে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান ৭ ফেব্রুয়ারি প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন,

“ভারতীয় বিএসএফ কর্তৃক ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া সীমান্ত থেকে ধরে নিয়ে যাওয়া ২৩ জন বাংলাদেশি নাগরিককে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমি সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের জানমালের নিরাপত্তা বিধান করা সরকারের দায়িত্ব। কিন্তু বাংলাদেশ সরকার দায়িত্ব পালনে বারবার ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে।

অতি সম্প্রতি বাংলাদেশের যশোর সীমান্তে বিএসএফ বাংলাদেশের একজন বিজিবি সদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছে। বাংলাদেশ সরকার তার বিরুদ্ধে কার্যকর কোনো পদক্ষেপই গ্রহণ করেনি। বাংলাদেশের পূর্ব সীমান্তে মায়ানমারের সেনাবাহিনী বাংলাদেশের অভ্যন্তরে হামলা চালিয়ে বাংলাদেশি মানুষকে হত্যা করছে এবং মায়ানমার সামরিক বাহিনীর ২৬৪ জন সদস্য বাংলাদেশে ঢুকে পড়েছে। ফলে সীমান্ত এলাকার জনগণের জানমানের নিরাপত্তা বর্তমানে হুমকির মধ্যে পড়েছে। অথচ সরকার কোনো পদক্ষেপই গ্রহণ করছে না।

সরকারের নতজানু পররাষ্ট্র নীতির কারণেই বাংলাদেশের মানুষের জানমালের নিরাপত্তা এবং দেশের পূর্ব সীমান্ত হুমকির মধ্যে পড়েছে। এ অসহায় অবস্থা কারো কাম্য নয়। ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া সীমান্ত থেকে ধরে নিয়ে যাওয়া ২৩ জন বাংলাদেশি নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে আনা এবং মায়ানমার সীমান্তে বাংলাদেশের জনগণের জানমাল রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য আমি সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।”