কত হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ হলে দুর্নীতি, কাদেরের কাছে প্রশ্ন রিজভী

কত হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের পর দুর্নীতি হিসেবে গণ্য করা হবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের কাছে প্রশ্ন। তার বক্তব্য প্রমাণ করে দুর্নীতিকে রাষ্ট্রীয়ভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

বুধবার সকালে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, মিথ্যা বানোয়াট কথা বলার জন্য আওয়ামী লীগের মন্ত্রীদের পুরস্কার দেওয়া যেতে পারে।

তিনি বলেন, জনগণ ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ায় প্রতিশোধ নিতে গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে সরকার। মিটার ভাড়া দ্বিগুণ করা সরকারের গণশত্রু চরিত্রের বহিঃপ্রকাশ। অবাধ লুণ্ঠনের উদাহরণ পৃথিবীতে বিরল।

তিনি আরও বলেন, ডামি সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরুর কয়েক ঘণ্টা পরই গ্যাসের প্রিপেইড মিটার ভাড়া ১০০ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২০০ টাকা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জনগণ ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ায় প্রতিশোধ নিতে গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে সরকার।

বিএনপির অন্যতম এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা যে মিথ্যা ও সাজানো, তা শাহজাহান ওমরের বক্তব্যে স্পষ্ট।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রীয় বাহিনীকে ব্যবহার করে জনগণের আন্দোলন দমিয়ে রাখা হচ্ছে। দলীয় ক্যাডার সিন্ডিকেটের খরচ জোগাতে রাষ্ট্রীয় কোষাগার শূন্য করছে সরকার। রাষ্ট্রীয় শক্তি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ধরাকে সরা জ্ঞান করছে সরকার।

কালো পতাকা মিছিলে পুলিশ অতর্কিত হামলা করেছে অভিযোগ করে রিজভী এর প্রতিবাদ জানান। তিনি বলেন, কালো পতাকা মিছিল থেকে সারা দেশে বিএনপির শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ৪৫৬ জনকে এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়েছে।

সরকার বলে বেড়ালেও উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি নেতাকর্মীদের আগ্রহ নেই এবং আন্দোলনেই তারা উদ্যমী উল্লেখ করে রিজভী বলেন, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দিলে পরিণতি কী হবে সেটা জেনেই অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন দেয় না সরকার। সত্য ন্যায়ের পক্ষে যারা কথা বলে তাদেরই বিএনপির দোসর হিসেবে প্রচার করছে আওয়ামী লীগ।