হত্যা-গুমের মাধ্যমে আ’লীগ ক্ষমতা ধরে রাখতে চাচ্ছে : রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, হত্যা ও গুমের সংস্কৃতি তৈরি করে আওয়ামী লীগ অবৈধ ক্ষমতা ধরে রাখতে চাচ্ছে। বাংলাদেশকে রক্তাক্ত জনপদ ছাড়া জনগণকে আওয়ামী লীগ আর কিছুই দিতে পারেনি।

সোমবার (১৫ জানুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

বিবৃতিতে রিজভী বলেন, ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানার পাইথল ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ডা: হারুনুর রশীদকে আজ প্রকাশ্যে কুপিয়ে গলাকেটে নির্মমভাবে হত্যা করেছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী সন্ত্রাসী কর্তৃক বিএনপি নেতা ডা: হারুনুর রশীদকে নির্দয়ভাবে কুপিয়ে হত্যা দেশজুড়ে আওয়ামী ফ্যাসিবাদী পৈশাচিকতার আরেকটি বর্বর দৃষ্টান্ত। আওয়ামী লীগ যে মানবিকবোধশূন্য রাজনৈতিক দল তার বহিঃপ্রকাশ ঘটলো ডা: হারুনুর রশীদকে পৈশাচিক কায়দায় হত্যার মাধ্যমে। হত্যা, গুমের সংস্কৃতি তৈরি করে আওয়ামী লীগ অবৈধ ক্ষমতা ধরে রাখতে চাচ্ছে। বাংলাদেশে রক্তাক্ত জনপদ ছাড়া জনগণকে তারা আর কিছুই দিতে পারেনি।’

তিনি আরো বলেন, ‘দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন একতরফাভাবে অনুষ্ঠানের পর জোর করে ক্ষমতা আঁকড়ে রাখতে আওয়ামী লীগ প্রতিবাদী জনগণকে ভয় পাইয়ে দেয়ার জন্য গ্রাম-গঞ্জ-শহর-নগরে রক্ত ঝরাচ্ছে। আওয়ামী লীগের নানা এজেন্ডার মধ্যে বিএনপিসহ গণতন্ত্রকামী বিরোধী দলগুলোকে নিশ্চিহ্ন করা একটি অন্যতম এজেন্ডা। ভোটারশূন্য নির্বাচন করে তাদের ফ্যাসিবাদী চেহারা আরো হিংস্র রূপ ধারণ করেছে।’

বিএনপির এ মুখপাত্র বলেন, ‘দেশে চরম মুদ্রাস্ফীতি, খাদ্যপণ্যের দামের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি এবং জনজীবনে হাহাকার আর নৈরাশ্য বজায় রাখতে অবৈধ সরকার বিরোধী দলের ওপর ক্রমাগত আক্রমণ শুরু করেছে। এর সর্বশেষ উদাহরণ আওয়ামী সন্ত্রাসী রুবেল কর্তৃক ডা: হারুনুর রশীদকে নির্মমভাবে হত্যা। তবে এভাবে হত্যা ও নির্যাতন-নিপীড়ন চালিয়ে আওয়ামী লীগ আর টিকে থাকতে পারবে না, প্রতিটি নির্মমতা ও হত্যাকাণ্ডের জবাব জনগণ একদিন কড়ায়-গন্ডায় আদায় করে নিবে।’

অবিলম্বে ডা: হারুনুর রশীদের হত্যাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর আহ্বান জানিয়ে রিজভী নিহতের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা ও শোকাহত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জ্ঞাপন করেন।