একটুর জন্য সাকিব ম্যান অব দ্য ম্যাচ হতে পারলেন যে কারণে হলেন রশিদ খান

দলের চেহারা আমূল পরিবর্তন করে এবারের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) খেলতে নেমেছিলো কলকাতা নাইট রাইডার্স। হঠাৎ এতো বদল কোনো দলকে বড় কিছুর দিকে এগিয়ে নিতে পারে না। তারপরও কলকাতা ফাইনালের আগ পর্যন্ত খেলে গেলো। ফাইনালে উঠার ম্যাচে তাদেরকে বিদায় করে দিয়েছে সাকিব আল হাসানদের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ইডেন গার্ডেন্সে মুখোমুখি হয় কলকাতা ও হায়দরাবাদ। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ১৭৪ রান করেন সাকিবরা। জবাব দিতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও কলকাতা হেরে গেছে ১৩ রানে। কলকাতাকে এই ম্যাচে হারিয়ে টানা চার হারের পর জয়ের দেখা পেলো পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থেকে শেষ চারে উঠা হায়দরাবাদ।

১৩ অভারে ১৬ রান দিয়ে ১ উইকেট নেয়া এবং ব্যাট হাতে ২৪ বলে ২৮ রান করা সাকিব এই রেসে বেশ এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু তাকে ছাপিয়ে ১০ বলে ৩৪ এবং হাত ঘুরিয়ে ৩ উইকেট নেওয়া রশিদ খানেই জিতে নেন ম্যান অফ দ্যা ম্যাচের পুরষ্কার।

সেরা পারফর্ম্যান্স:লিগ পর্বের শেষ তিন ম্যাচ এবং পরে প্রথম কোয়ালিফায়ার, এই চার ম্যাচে টানা হেরেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ফলে কলকাতার ঘরের মাঠে তাদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে স্বাভাবিকভাবেই তাদের আত্মবিশ্বাস ছিলো তলানিতে। কিন্তু রশিদ খান তলানিতে থাকা আত্মবিশ্বাস নিয়েই যেমন পারফর্ম করেছেন, তাতে কলকাতা টিকেনি হায়দরাবাদের সামনে। এই ম্যাচের সেরা পারফর্মার অবশ্যই এই আফগান স্পিনার।

সম্প্রতি শচিন টেন্ডুলকার বলেছেন, তার এ কথা বলতে দ্বিধা নেই যে, রশিদ খান হলেন বর্তমান সময়ে টি-টোয়েন্টির এক নম্বর বোলার। কলকাতার বিপক্ষে চার ওভারে ১৯ রান দিয়ে তিন উইকেট নিয়ে সেটা রশিদ প্রমাণ করলেন আরো একবার। এ দিন তিনি ব্যাট হাতেও ছিলেন দুর্ণিবার। করেছেন ১০ বলে ৩৪ রান।

প্রথম ইনিংস:হায়দরাবাদ শুরুটা করে দেখেশুনে। অষ্টম ওভারের প্রথম বলে বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগে শিখর ধাওয়ান ও ঋদ্ধিমান সাহা তুলেন ৫৬ রান। কুলদিপ যাদবের বলে আউট হয়ে ধাওয়ানের ফেরার মাধ্যমে ভাঙে সানরাইজার্সের ওপেনিং জুটি। তিন নম্বরে নামা অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন এ দিন ছিলেন ব্যর্থ। তিন বলে তিন করে ফেরেন তিনি। চার নম্বরে নেমে ঋদ্ধিমানের সঙ্গে জুটি গড়েন সাকিব আল হাসান। পুরো আইপিএলে ব্যাট হাতে বাজে সময় যাচ্ছে বাংলাদেশি অলরাউন্ডারের। ২৪ বলে ২৮ রান করে সেই বাজে সময় থেকে বেরিয়ে আসার মোটামুটি একটা ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।

১৬তম ওভারের প্রথম বলে সাকিব যখন আউট হন, সানরাইজার্সের স্কোরবোর্ডে তখন উঠেছে মাত্র ১১৩ রান। তারপরও তাদের রান ১৭০-এর বেশি হয় মূলত রশিদ খানের অনবদ্য ব্যাটিংয়ে। শেষ দিকে নেমে মাত্র ১০ বলে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন রশিদ। চারটি ছয় ও দুটি চার মারেন তিনি। কলকাতার হয়ে কুলদিপ যাদব দুটি উইকেট নেন। একটি করে উইকেট নেন শিভাম মাভি, সুনিল নারিন ও পিযুস চাওলা।

ফাইনালের অপেক্ষায় হায়দরাবাদ : একদিন বাদেই মুম্বাইয়ের ওয়েংখেড়ে স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে একাদশ আইপিএলের ফাইনাল। ফাইনালের মঞ্চে আগেই পা দিয়ে রেখেছে চেন্নাই সুপার কিংস। প্রথম কোয়ালিফায়ারে সানরাইজার্সকেই হারিয়েছে তারা। এবার সানরাইজার্স অপেক্ষা বসলো সেই হারের বদলা নিতে। ২৭ তারিখ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় অনুষ্ঠিত হবে আইপিএল ফাইনাল।