গণতন্ত্রের স্বার্থে ভোট বর্জনের আহ্বান ফারুকের

গণতন্ত্রের স্বার্থে দেশবাসীকে আগামীকাল রোববার (৭ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিতব্য দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট বর্জন করার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম উপদেষ্টা ও সাবেক বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক।

ভোটারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আসুন, ৭ জানুয়ারি ‘একতরফা’ প্রহসনের নির্বাচনের ভোট বর্জন করি। আমার ভোট আমি দিব- এমন সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করি।’

শনিবার (৬ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর নিকুঞ্জ-২ এলাকায় ঢাকা মহানগর উত্তর মহিলা দলের উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিলপূর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এসব কথা বলেন ফারুক।

৭ জানুয়ারির ভোট বর্জনের আহ্বানে বিএনপির ডাকে দেশব্যাপী চলমান ৪৮ ঘণ্টা হরতালের সমর্থনে এই বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে ঢাকা মহানগর উত্তর মহিলা দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, দেশে নির্বাচনের নামে ফের তামাশা-নাটক মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে। দুই হাজার কোটি টাকা খরচ করে একটি অগ্রহণযোগ্য নির্বাচন করে গরিব দেশকে আরও গরিব করার হীন ষড়যন্ত্র চলছে। এ জন্য নির্বাচন কমিশনকে এক দিন জবাবদিহি করতে হবে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় আমাদের অঙ্গীকার ছিল- এই দেশকে গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করব। মানবাধিকার যাতে লঙ্ঘিত না হয় সেদিকে নজর রাখব। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয়, দেশের স্বাধীনতার ৫২ বছর পরেও এই দেশে গণতন্ত্র, মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা হয়নি। একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করার জন্য গণতন্ত্রকে হত্যা করা হচ্ছে। আবারও দেশে একদলের শাসন ব্যবস্থা কায়েমের জন্য ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। তাই দেশবাসীকে বলব- আসুন, আগামীকালের (রোববার) ভোট বর্জন করি। আমার ভোট আমি দিব- এমন সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করি।