ইয়াবা ব্যবসায়ীর তথ্য দেয়ায় সাংবাদিকের বাড়িতে হামলা

ইয়াবা ব্যবসায়ীর তথ্য দেয়ার অভিযোগে কক্সবাজারে এক সাংবাদিকের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা। শুক্রবার জুমার নামাজের পর এ ঘটনা ঘটে।

শহরের নিহত শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মো. হাসানের তথ্য পুলিশকে দেয়া এবং সংবাদ প্রকাশের অভিযোগ সাংবাদিক সাদ্দামের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা। হামলায় সংবাদিক সাদ্দাম হোসেন ও তার মা আহত হয়ে কক্সবাজারে সদর হাতপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

সাদ্দাম হোসেন কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক সকালের কক্সবাজার পত্রিকার প্রতিনিধি। সংঘবদ্ধ ইয়াবা ব্যবসায়ীরা সাদ্দামের বাড়ির সব জিনিসপত্র ভেঙে দিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিযেছেন, শুক্রবার জুমার নামাজের কলাতলি উত্তর আদর্শগ্রামের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী ও যুবদল নেতা নিহত মো. হাসানের পার্টনার নাসির উদ্দীনের নেতৃত্বে এই হামলা করা হয়েছে। এর আগে এলাকার মসজিদের জুমার নামাজের খুতবায় দাঁড়িয়ে প্রকাশ্যে নিহত ইয়াবা ব্যবসায়ী হাসানের পক্ষে নেয়া হয়। এই সময় হাসানের তথ্যদাতা হিসেবে সাংবাদিক সাদ্দামকে হত্যার ঘোষণা দেয় নাসির।

স্থানীয়রা জানান, জুমার খুতবা পড়াকালে ইমামকে থামিয়ে মসজিদের মিম্বরে দাঁড়িয়ে আদর্শগ্রামের নিহত ইয়াবা ব্যবসায়ী মো. হাসানের সহযোগী বিএনপি নেতা নাসির উদ্দীন দাবি করেন পুলিশ বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে হাসানকে হত্যা করেছে। একদিন আগে তাকে আটক করে পরিবারের কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা দাবি করে পুলিশ। টাকা না দেয়ায় হাসানকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে পুলিশ। এলাকার সাংবাদিক সাদ্দাম হোসেন পুলিশকে হাসানের ব্যাপারে তথ্য দিয়েছে।

এসময় নাসির উদ্দীন দাবি করে, হাসান ইয়াবা ব্যবসায়ী নয়। এমনকি আদর্শগ্রাম এলাকায়ও একজনও ইয়াবা ব্যবসায়ী নেই। পুলিশকে ২০ লাখ চাঁদা না দেয়ায় হাসানকে খুন করা হয়েছে। সাদ্দাম হোসেন পুলিশকে তথ্য দিয়ে চরম অন্যায় করেছে। মসজিদের মাইকে সাংবাদিক সাদ্দামকে এলাকা ছাড়া করার ঘোষণা দেয়া হয়। এর আগে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাসানের ইয়াবা সিন্ডিকেটের সদস্যরা মসজিদে জড়ো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নামাজ শেষ হওয়ার সাথে সাথে জড়ো হওয়া ইয়াবা ব্যবসায়ীরা একযোগে সংবাদকর্মী সাদ্দাম হোসেনের বাড়িতে হামলা করে। হামলাকারীরা ইট-পাটকেল, লাঠিসোটা দিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।

হামলার খবর পেয়ে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশে দ্রুত অভিযানে যায় কক্সবাজার সদর মডেল থানার একদল পুলিশ।

এ ব্যাপারে নাসির উদ্দীন বলেন, সাংবাদিক সাদ্দাম সমাজবিরোধী কাজ করেছে। তাই সমাজ কমিটির লোকজনের রোষানলে পড়েছে। এ ঘটনার সাথে তার কোনো সম্পৃক্তা নেই। উল্লেখ্য, আদর্শগ্রাম সমাজ কমিটির সভাপতি নাসির উদ্দীন।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার জেলা পুলিশের মুখপাত্র আফরুজুল হক টুটুল বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠানো হয়েছে। ইয়াবা ব্যবসায়ীদের এই দাম্ভিকতার কঠোর জবাব দেয়া হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

উৎসঃ poriborton