‘চেন্নাই দুর্দান্ত দল, তাদের সঙ্গে আমাদের চূড়ান্ত পরীক্ষা’

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে অনবদ্য জয়ের পর টিভি ক্যামেরা প্রথমেই তাক করে সাকিবের প্রতি। এ ম্যাচে ‍গুরুত্বপূর্ণ ২৮ রানের পর বল হাতে দারুণ পারফর্ম ছিল বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারের।বোলিংয়ে রশিদের দারুণ সঙ্গ দিয়ে ম্যাচ বের করে আনা সাকিবের কাছে জানতে চাওয়া হলো, ম্যাচ নিয়ে তার প্রতিক্রিয়া।সাকিব প্রথমেই তাকে খেলানোর জন্য হায়দরাবাদকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান।গত আসরগুলোতে বাংলাদেশী এ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে অনেক ম্যাচেই সাইডলাইনে বসিয়ে রেখেছিল এই কলকাতা। সেসব স্মৃতি তিনি উল্লেখ না করলেও দর্শকরা তা ভুলে যায়নি।

সাকিব আল হাসান বলেন, আমি এনিয়ে তৃতীয়বারের মতো আইপিএলের ফাইনালে খেলতে যাচ্ছি। আমাকে সবগুলো ম্যাচে খেলানোর জন্য সানরাইজার্স হায়দরাবাদের টিম ম্যানেজম্যান্টকে ধন্যবাদ। তবে কিছু খেলায় আমি আমার সেরাটা দিতে পারিনি। আমি বলব হায়দরাবাদের জন্য এটা ছিল একটা ভালো টুর্নামেন্ট।ফাইনাল নিয়ে বলতে গিয়ে সাকিব বলেন, ‘ফাইনালে আমাদের প্রতিপক্ষ চেন্নাই সুপার কিংস। তারা একটি দুর্দান্ত দল। তাদের সঙ্গে আমাদের চূড়ান্ত পরীক্ষা হবে।’

কলকাতার সঙ্গে শ্বাসরুদ্ধকর এ ম্যাচ জয় প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, ‘এটা আমাদের সবার জানা, শেষ দুই তিন ওভারে ম্যাচের ভাগ্য পরিবর্তন হতে পারে। এই জায়গায় এসে অনেকেই হেরে যায়, আবার জয় নিয়েও মাঠ ছাড়ে।’

জয়ের মূলমন্ত্র কী ছিল?

সাকিবর বলেন, ‘আমরা তাদের স্নায়ুভাবে চাপে রাখতে চেয়েছি। আজ আমরা অন্যদিনের জয়ের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়েছি। খেলার টার্নিং পয়েন্ট হল, মাঝ পথে বোলিং করে আমি এবং রশিদ খান, রবিন উথাপ্পা ও দিনেশ কার্তিকদের বোল্ড করে খেলার মোর ঘুরিয়ে দিয়েছি।আর শেষ ওভার করা বোলার কার্লোস ব্রাথওয়েট সম্পর্কে সাকিব বলেন, ‘তিনি একজন ভাগ্যবান মানুষ। আমরা তাকে হারিয়েই ফেলেছিলাম, আজ আবার ফিরে তিনি আমাদের জয় উপহার দিলেন।’

প্রসঙ্গত, কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৪ রানে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।ম্যাচে সাকিব ৩ ওভার বোলিং করে মাত্র ১৬ রান দিয়ে কার্তিককে বধ করাটাই ম্যাচ জয়ের জন্য টার্নিং পয়েন্ট ছিল। তার সঙ্গে ম্যাচ জয়ের নেপথ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন সাকিব সে কথা ক্রিকেটবোদ্ধারা স্বীকার করতে কার্পণ্য করবেন না।ম্যাচে ব্যাট করতে নেমে রশিদ খান ১০ বলে ৩৪ রানের ইনিংস উপহার দেন। আর চার ওভারে মাত্র ১৯ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন।
thebangladeshtoday.com