কুসিক নির্বাচন: কেউ এসএসসি পাস, কারও বিরুদ্ধে মামলার পাহাড়

কেউ এসএসসি পাস, কারও বিরুদ্ধে মামলার পাহাড় কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ প্রার্থীর মধ্যে কেউবা এসএসসি পাস, কারো বিরুদ্ধে আছে সর্বোচ্চ ১৪টি পর্যন্ত মামলা। শিক্ষাগত যোগ্যতায় পিছিয়ে সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু। আর আওয়ামী মনোনয়ন প্রাপ্ত প্রার্থীর কোন নগদ টাকা নেই বলে জানানো হয়। রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে জমা দেয়া হলফনামা থেকে জানা গেছে এসব তথ্য।

বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত নিজাম উদ্দিন কায়সার দাঁড়িয়েছেন স্বতন্ত্র হিসাবে। রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে দাখিলকৃত হলফনামায় দেখা যায়, বি.কম পাস ব্যবসায়ী কায়সারের বিরুদ্ধে আছে ১৪টি মামলা। এর মধ্যে ৮টি বিচারাধীন।

গতবারের সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর বিরুদ্ধে মামলা ১২টি হলেও ১০টিতেই অব্যাহতি পেয়েছেন তিনি। ৫ মেয়র প্রার্থীর মধ্যে তার শিক্ষাগত যোগ্যতাই সবচেয়ে কম, এসএসসি পাস করেছেন। পেশায় ঠিকাদার।

এদিকে, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতের শিক্ষাগত যোগ্যতা বি.এ পাস। তার বিরুদ্ধে বিশ বছর আগে একটি মামলা থাকলেও পেয়েছেন অব্যাহতি। পেশায় ঠিকাদার রিফাতের বছরে ২৫ লাখের বেশি হলেও হলফনামায় কোন নগদ টাকা দেখানো হয়নি।

আর ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী রাশেদুল ইসলাম কামিল পাস, পেশায় শিক্ষক, তার নামে নেই কোন মামলা। আরেক প্রার্থী এএইচএসসি পাশ ব্যবসায়ী কামরুল আহসান বাবুলের বিরুদ্ধে দুটি মামলা নিষ্পত্তি পর্যায়ে রয়েছে।

বেশি মামলা ও শিক্ষাগত যোগ্যতা জনপ্রতিনিধি নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছে সচেতন মহল। আগামী ১৫ই জুনের নির্বাচনে যোগ্য প্রার্থীকেই বেছে নেবেন ভোটাররা- এমনটাই প্রত্যাশা সবার।channel24bd