নবজাতকের কান্না চিরতরে থামিয়ে দিলেন পাষণ্ড মা!

নবজাতকের কান্না চিরতরে থামিয়ে দিলেন পাষণ্ড মা সন্তান জন্মের কিছুক্ষণ পরই তাকে পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করেছেন এক পাষণ্ড মা। হাসপাতালের একটি টয়লেটের ভেতর পানির বালতিতে ডুবিয়ে তাকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের গুজরাটের খেদা জেলার মাতার তালুকের একটি গ্রামে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

গত বুধবার বুধবার ভাসোর একটি কমিউনিটি হেলথ সেন্টারে (সিএইচসি) এ ঘটনা ঘটান ২০ বছর বয়সী ওই মা। সন্দেহ করা হচ্ছে, ওই নববিবাহিত নারী অবৈধ সম্পর্কের পরে সন্তানটিকে গর্ভে ধারণ করেছিলেন। আর স্বামীর কাছ থেকে এ বিষয়টি লুকাতেই এমন জঘন্য অপরাধ করে থাকতে পারেন।

ভাসো পুলিশ জানিয়েছে, শিহোনি গ্রামের বাসিন্দা মনীষা চুনারা শনিবার খেদা’র পিজ গ্রামের সুনীল চুনারাকে বিয়ে করেন। বুধবার মনীষা তার স্বামীকে জানান যে, তিনি স্ত্রীরোগ সংক্রান্ত সমস্যার জন্য একজন ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করতে সিএইচসি যাচ্ছেন। সকাল সোয়া ১০টার দিকে তিনি সিএইচসিতে পৌঁছান।

তদন্তকারী অফিসার এবং ভাসো পিএসআই এইচ জে রাঠোর বলেন, সিএইচসি’তে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গেই সরাসরি টয়লেটের দিকে রওনা হন মনীষা। সেখানেই সাহায্য ছাড়া শিশুটিকে প্রসব করেন তিনি। নবজাতকটি কাঁদতে শুরু করলে সে তার হাত দিয়ে শিশুর মুখ চেপে ধরে এবং তাকে এক বালতি পানি ডুবিয়ে দেন। এরপরই তিনি হাসপাতাল ছেড়ে পিজে স্বামীর বাড়িতে চলে যান

বেলা সাড়ে ১২টার দিকে একজন স্যানিটেশন কর্মী সিএইচসি টয়লেটে বালতির ভেতরে ওই নবজাতককে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। এরপর তিনি হাসপাতালের কর্মীদের সতর্ক করেন। তারাই পুলিশকে খবর দেন।channel24bd