আইপিএল শেষ করে বাড়ি ফিরেই বাবাকে দিলেন গাড়ি উপহার ছেলের!

আইপিএল শেষ করে বাড়ি ফিরেই বাবাকে-চলতি আইপিএলটা ভালো যায়নি সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। তবে বল হাতে বাইশ গজে আগুন ছুটিয়েছেন দলের কাশ্মীরি পেসার উমরান মালিক। ধারাবাহিকতার অভাব থাকলেও বেশ কিছু ম্যাচে দারুণ বোলিং করেছেন উমরান। একই সাথে

এবারের আসরের ইমার্জিং প্লেয়ারের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন এই গতি তরকা। আর দারুণ এই পারফরম্যান্সের পুরস্কারস্বরূপ আগামী মাসে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ভারতীয় দলে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। আইপিএলে হায়দরাবাদের ১৪ টি ম্যাচেই ম্যাচের সবচেয়ে

দ্রুতগতির ডেলিভারি করে মোট ১৪ লক্ষ্য টাকা জিতেছেন উমরান। তার আইপিএলের এই রোজগার থেকে বাবা আবদুল রশিদকে গাড়ি কিনে দিয়েছেন তিনি। ছেলের কাছ থেকে গাড়ি উপহার খুব খুশি উমরানের বাবা। তিনি একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন,‘আইপিএলে ওর রোজগার থেকে

আমাকে একটা গাড়ি উপহার দিয়েছে উমরান। আমি খুব খুশি। আমরা সবসময়েই ওকে আনন্দে রাখতে চাইতাম, ওর সব আবদার মেটানোর চেষ্টা করেছি। এখন ও নিজেও তাই করছে। তবে আমার চেয়েও বেশি খুশি আমার স্ত্রী। ছেলের সাফল্য দেখে ও খুব আনন্দে রয়েছে।’ আগামী জুনে

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে ভারত। সেই সিরিজের ভারতীয় দলে উমরান মালিককে বেছে নেওয়া হয়েছে। জম্মু ও কাশ্মীরের এই গতিদানব ২০২২ সালের আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে ১৪ ম্যাচে ২২ উইকেট নিয়েছেন।

তবে সেইজন্য নয়, বরং নিয়মিত ১৫০কিমি প্রতি ঘন্টার বেশি গতিতে বল করার কারণেই তাকে দেখে সকলে মুগ্ধ হয়েছিল। এখন তিনি জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ায় আনন্দিত সকল ক্রিকেটপ্রেমীরা। উমরান মালিকের পরিবার এবং বন্ধুরা তার এই সুযোগে বেশ কিছুটা আনন্দ উৎসব পালন করেছেন।

তাদের উদযাপনের ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতেও বেশ ভাইরাল হচ্ছে। উমরানের বাবা মিডিয়ার কাছে বলেছেন, ‘আজ এত মানুষ ওকে পছন্দ করছে, এত ভালোবাসা দেওয়ার জন্য আমি দেশের কাছে কৃতজ্ঞ। এসবই ওর পরিশ্রমের ফলে সম্ভব হয়েছে। আমি আশা করি ও দেশকে গর্বিত করবে।’