স্ত্রীকে হত্যা করে ২৬ বছর পলাতক স্বামী,অবশেষে যেভাবে ধরা পড়লেন… 

স্ত্রীকে হত্যা করে ২৬ বছর পলাতক স্বামী,অবশেষে যেভাবে ধরা পড়লেন ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ায় স্ত্রীকে হত্যা করে ২৬ বছর পলাতক ছিলেন স্বামী, করেছিলেন আরেকটি বিয়ে। অবশেষে পুলিশের হাতে ধরা পড়লেন যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত স্বামী আবদুল আজিজ (৫০)। তাকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত আজিজ ফুলবাড়িয়া উপজেলার পুটিজানা ইউনিয়নের নামাপাড়া গ্রামের আহাদ আলীর ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক হেলাল উদ্দিন তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এর আগে বুধবার (২৫ মে) বিকেলে টাঙ্গাইল জেলা সদরের হরিয়া এলাকার বেবিস্ট্যান্ড থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।আদালত পরিদর্শক প্রসুন কান্তি দাস জানান, যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি আবদুল আজিজকে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

ফুলবাড়িয়া থানার উপপরিদর্শক আবদুর রাজ্জাক জানান, ১৯৯৬ সালের ৮ জুলাই উপজেলার পুটিজানা ইউনিয়নের নামাপাড়া গ্রামে পারিবারিক বিরোধের জেরে আবদুল আজিজ তার স্ত্রীকে হত্যা করে। ঘটনার পর আবদুল আজিজকে আসামি করে ফুলবাড়িয়া থানায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। এরপর থেকেই সে পলাতক ছিল। হত্যা মামলায় আদালত যাবজ্জীবন সাজা দেন আবদুল আজিজকে। পরে গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে আদালত আবদুল আজিজকে গ্রেপ্তার ওয়ারেন্ট জারি করে। ওয়ারেন্ট জারির পর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চালানো হয়।

সম্প্রতি আবদুল আজিজ টাঙ্গাইল জেলা সদরের হরিয়া এলাকায় বসবাস করছেন বলে জানতে পারে পুলিশ। বুধবার বিকেলে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আব্দুল আজিজের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, সে ওইখানে ভাঙ্গারীর ব্যবসা করত। তারপর নিজের পরিচয় গোপন করে বিয়ে করেছিল সে। সেখানে তার দুই ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। ফুলবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ওয়ারেন্ট ইস্যুর পর তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতের নির্দেশে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।rtvonline