বাড়ির কাজের মেয়েকে বিয়ে, স্বামীকে ফিরে পেতে চান প্রথম স্ত্রী

স্বামীকে ফিরে পেতে চান প্রথম স্ত্রী-বাড়ির কাজের মেয়েকে বিয়ে করেছেন মাদকাসক্ত স্বামী। এ ছাড়া প্রথম স্ত্রীসহ তার দুই সন্তানের কোনো ধরনের ভরণপোষণও দেন না তিনি। তাই স্বামীকে ফিরে পেতে ও দুই ছেলের অধিকার আদায়ের দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে করেছেন মোছা. আখিনুর আক্তার নামের এক গৃহবধূ।

আজ রোববার (১৫ মে) দুপুরে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। তিনি শহরের বেড়াডোমা এলাকার মো. জহিরুল ইসলামের স্ত্রী। সংবাদ সম্মেলনে আখিনুর আক্তার জানান, ১৭ বছর আগে জহিরুল ইসলামের সাথে তার বিয়ের পর তিনি জানতে পারেন তার স্বামী মাদকাসক্ত। সংসারে স্বামীর শারীরিক ও মানসিক

নির্যাতন সহ্য করেছেন এত বছর। তাদের ঘরে দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। একজনের নাম আনন (১৫), আরেকজন রেজুয়ান (৭)। এই দুই ছেলে আখিনুর আক্তারের হেফাজতে লেখাপড়া করছে। অপরদিকে, তার স্বামী জহিরুল ইসলামকে শহরের একটি মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রে চিকিৎসা করালে পরবর্তীতে আবার মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে।

কেউ মাদকদ্রব্য কিনে দিয়ে তার স্বামীকে জমি লিখে দিতে বললে, জহিরুল তা দিয়ে দিতেন। তার বাড়ির কাজের মেয়ে রহিমা বেগম কৌশলে জহিরুলকে বিয়ে করেন।রহিমা বেগম ও তার বাবা বাদশা মিয়া তাদের হেফাজতে রেখে জহিরুল ইসলামকে মাদকদ্রব্য কিনে দিয়ে আসক্ত অবস্থায় তার কাছ থেকে তিন তলা ভবন ও জমি লিখে

নিয়েছেন। বাকি কিছু জমি বিক্রির জন্য স্থানীয় দালালদের সাথে আঁতাত করছেন তারা। গৃহবধূ আখিনুর আক্তারের দাবি, বাকি সম্পত্তি আত্মসাৎ না করে তার দুই ছেলে আনন ও রেজুয়ানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে রেখে দেওয়া প্রয়োজন। কিন্তু জমি বিক্রি না করার জন্য অনুরোধ করলে রহিমা বেগম ও তার লালিত সন্ত্রাসীরা

আখিনুর আক্তারকে হত্যা করে লাশ গুমের হুমকি দিচ্ছে। এ ছাড়াও বাড়িতে থেকে তাদের বের হয়ে যেতে বলছে সন্ত্রাসীরা। বের না হলে দুই ছেলেকে হত্যারও হুমকি দিচ্ছে তারা। অপরদিকে, রহিমা বেগমের নিয়ন্ত্রণে রাখা তার স্বামীকে হত্যা করে আখিনুরের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়ারও হুমকি দিচ্ছে। এ ছাড়াও আখিনুরের বিরুদ্ধে মিথ্যা

মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান তিনি। আখিনুর আক্তার বলেন, আমার স্বামীকে ফিরে পেতে চাই। দুই সন্তানের অধিকার ফিরিয়ে দিতে চাই। আমাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হচ্ছে, তা বন্ধ করা হোক। স্বামীকে নিয়ে তার বাড়িতেই বসবাস করতে চাই।