চলছিল জেরা, যা করে বসলেন হাজার কোটি টাকা পাচারকারী সেই পিকে হালদার

কান্নায় ভেঙে পড়লেন হাজার কোটি টাকা পাচারকারী সেই পিকে হালদার-জেরার মুখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন পিকে হালদার-ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগর থেকে গ্রেপ্তার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ মাথায় নিয়ে বিদেশে পালানো প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদার জেরার মুখে

কান্নায় ভেঙে পড়লেন। ভারতের অর্থ-সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বাহিনী এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেট (ইডি) পিকে হালদারকে জেরা করছে। রোববার (১৫ মে) নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ইডি কর্মকর্তা জানান, গ্রেপ্তারের তথ্য নিশ্চিত করার আগেই ২৪ ঘণ্টা জেরা করা শুরু হয়ে। গ্রেপ্তারের পর দুই ঘণ্টা বিরতি দেওয়া হয়।

এরপর ফের ম্যারাথন জেরা শুরু হয়েছে। জেরার মুখে তদন্ত কর্মকর্তাদের সামনে দফায় দফায় কান্না করেছেন পিকে হালদার। তিনি আরও জানান, দীর্ঘ জেরার মুখে “তিনি ব্যবহৃত হয়েছেন” এই লাইন বলে ইডির তদন্তকারী অফিসারদের সামনে কান্নায় ভেঙে পড়েন পি কে হালদার। সূত্র আরো বলছে, পি কে

হালদার দাবি করেছেন তাকে ভুল পথে পরিচালিত করেছে তার সহযোগীরা। এর আগে রোববার (১৫ মে) সকালে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক পিকে হালদারের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন কলকাতার নগর দায়রা আদালত। এর ফলে তাকে রিমান্ডে পেয়েছে ইডি।

এর আগে গতকাল শনিবার পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার হন পিকে হালদার। শনিবার ইডি আরও পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এরমধ্যে চারজন বাংলাদেশি। তারা হলেন- প্রীতিশ কুমার হালদার ও তার স্ত্রী (নাম জানা যায়নি), উত্তম মিত্র ও স্বপন মিত্র। এছাড়া প্রণব হালদার নামে এক ভারতীয়কে গ্রেপ্তার করে ইডি।

প্রণব সেখানে সরকারি চাকরি করেন। পরে সঞ্জীব হালদার নামে একজনকে আটক করার কথা জানায় ইডি। সঞ্জীব বাংলাদেশ গ্রেপ্তার সুকুমার মৃধার জামাই।channel24bd