আওয়ামী লীগের সর্বনাশ চাইতে গিয়ে যারা বাংলাদেশের সর্বনাশ চান

আওয়ামী লীগের সর্বনাশ চাইতে গিয়ে যারা বাংলাদেশের সর্বনাশ চান-লীনা পারভীন।। শ্রীলঙ্কার অবস্থা দেখে যারা খুশি হচ্ছেন তাদের মানসিক দৈন্যতা আমার কাছে গবেষণার মতো বিষয়। বাংলাদেশের অবস্থাও শ্রীলঙ্কার মতো হবে এমনটা যারা মাথার দিব্যি দিচ্ছেন তাদের মানসিক বৈকল্য নিয়ে আমি শঙ্কিত।

এমন জনগণ যে দেশের নাগরিক সেই দেশের সর্বনাশ ঠেকানো আসলেই মুশকিল। আরে আপনা ভালোতো পাগলেও চায়। দেশটা কার ভাই? দেশটাতো আমার, আপনার সবার। এক আওয়ামী লীগের সরকারের না। তাইলে শেখ হাসিনার উপর প্রতিশোধ নিতে গিয়া আপনি নিজের দেশের সর্বনাশের স্বপ্নে হাসতেছেন।

কী ভাই? আপনাদের তো মিশরের যাদুঘরে পাঠানো দরকার। সতর্কতা আর কামনা করা দুইটা দুই বিষয়। আমাদের দেশে দুর্নীতি বা টাকা পাচার সবকিছুই হচ্ছে এবং খুব ভালোভাবেই হচ্ছে। মন্ত্রী এমপিদের কেউ কেউ দুর্নীতি করছে, এটাও অস্বীকারের উপায় নাই। সুশাসনের সমস্যা আছে অবশ্যই।

কিন্তু তাই বলে আপনি বসে বসে বলছেন, দেখিনা চোরায় কী করে? আজব না? ট্রল করতেছেন, মজা লইতেছেন। এতে কার কী আসে যায়? যারা দুর্নীতি করতেছে তারা এইসব মাথায় নিয়াই করতেছে। বুকে হাত দিয়া কনতো, দুর্নীতি কেবল মন্ত্রী এমপি’রাই করতেছে? আপনার পরিবারের যে লোকটা

সরকারের কামলা বা আমলা সে করতেছে না? উন্নয়নের সুযোগ কে না নিচ্ছে? আর আপনি হাসলেন না কানলেন এতে ওগোর কিচ্ছু আসে যায়না। বাংলাদেশ যদি শ্রীলঙ্কা হয় তাইলে ক্ষতি কার বলেনতো? শ্রীলঙ্কায় ভুগতেছে কারা? দুই চারজন মন্ত্রী এমপি মাইর খাইলে কি সাধারণ মানুষের ভোগান্তি বা দুর্গতির

কমতি হয়ে যাইবো? পারলে সময় থাকতে হাতেনাতে ধরেন। যারা দুর্নীতি করতেছে তাগোরে দাব্রানী দেন। সমস্যা কই? অন্তত নিজেদের ভোগান্তি কমাইতে পারবেন। আমি এখনও বিশ্বাস করি, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা শ্রীলঙ্কার দিকে যাবেনা। কারণ শেখ হাসিনা আরেকজন রাজা পাকশে না। পাকশে ব্যক্তিগতভাবে

দুর্নীতিবাজ ছিলো এবং তার পরিবার ক্ষমতার অংশ ছিলো। শেখ হাসিনার পরিবার দুর্নীতিতে অংশ নেয় নাই। তারা সবাই যে যার নিজস্ব অবস্থানে বহাল আছে। একটা দেশের মাথা যদি চোর হয় তখন সে দেশের কাছে আশা করার আর কিছু থাকেনা। আমাদের মাথা এখনও সঠিক লাইনেই আছে। অর্থনৈতিক ঋণ কখনোই

বাংলাদেশে কম ছিলো না, বরং আগে ঋণের উপরেই ভরসা ছিলো। এখন আমাদের নিজস্ব আয়ের ব্যবস্থা আছে অনেক। আমাদের অন্তত দুটি শক্ত খাত আছে। একটি পোষাক শিল্প আর অন্যটি কৃষি যেগুলো পর্যটনের মত পরনির্ভরশীল নয়। করোনার পরীক্ষায় বাংলাদেশ অত্যন্ত সফলভাবে পাস করে গেছে যা অনেক দেশ পারেনি। পরনির্ভরশীল শিল্পখাত দিয়ে অর্থনীতি টিকানো যায় না, এই শিক্ষা নিশ্চয়ই আমাদের সরকার নিবে।

তবে আপনারা যারা শ্রীলঙ্কার মতো বাংলাদেশ হয়ে যাচ্ছে বলে হাসি-তামশা করে দিন গুজরান করছেন তারা সবাই বাংলাদেশের শত্রু। কারণ আপনি আপনার দেশটাকে ভালোবাসেন না। ভালোবাসলে দেশের সর্বনাশের কল্পনায় আপনার কান্না আসতো, হাসি পেতো না। আপনাদের মানসিক চিকিৎসা দরকার। সিরিয়াসলি দরকার। আওয়ামী লীগের সর্বনাশ চাইতে গিয়ে বাংলাদেশের সর্বনাশ যারা চায়, তারা আর যাই হোক, বাংলাদেশের নাগরিক বলে মানা যায় না। এরা সবাই মোশতাকের সন্তান। জয় বাংলা।

ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

bdmorning