সাকিবকে না কেনার ফল হারে হারে টের পাচ্ছে কলকাতার, পরিসংখ্যান সেটাই বলে!

সাকিবকে কেনেনি বলেই কলকাতার এই দুর্দশা-বাংলাদেশের হয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ আইপিএলে সবচেয়ে বেশি খেলেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ২০১১ সালে তাকে প্রথমবার কিনে নেয় কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)। এরপর থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত টানা সাত বছর ফ্রাঞ্জাইজিটির

হয়ে খেলেছেন তিনি। ২০২১ সালে তাকে আবারও দলে ভেড়ায় কেকেআর। এর মাঝে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের জার্সিতে খেলেন সাকিব। তবে এ বছর ২০২২ সালে কোনো দলই সাকিবকে দলে নেওয়ার প্রতি আগ্রহ দেখায়নি। আইপিএলে সবমিলিয়ে ৭১টি ম্যাচ খেলেছেন সাকিব। এতে ব্যাট

হাতে ৭৯৩ রান করার পাশাপাশি উইকেট শিকার করেছেন ৬৩টি। পারফরম্যান্স খুব বেশি উজ্জ্বল না হলেও দলে তার প্রভাব ছিল বেশ। ২০১২ ও ২০১৪ মৌসুমে কলকাতার হয়ে দুইবার শিরোপার স্বাদ পান এই অলরাউন্ডার। সাকিব থাকাকালীন প্রথম ধাপে (২০১১-২০১৭) দুই বার শিরোপা জিতে কলকাতা,

তিন বার প্লে-অফে খেলে এবং দুই বার গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হয়। ২০১‌৮ মৌসুমেও প্লে-অফ খেলতে সক্ষম হয় ফ্রাঞ্জাইজিটি। এর পরের মৌসুমেই তাদের ছন্দপতন ঘটে। টানা দুই বার প্লে-অফে উঠতে ব্যর্থ হয় তারা। আর তাইতো সফলতা পেতে ২০২১ সালে আবারও সাকিবকে কিনে নেয়

কলকাতা। তখন ফ্রাঞ্জাইজি কর্তৃপক্ষ বলেছিল, বাংলাদেশি অলরাউন্ডার না কি তাদের জন্য ‘লাকীচার্ম’ (সৌভাগ্যের প্রতীক)। হয়তো তাদের কথাই সত্যি। ২০২১ সালে রানার্সআপ হয়েছে কেকেআর।