সুখী-সমৃদ্ধ সমাজ প্রতিষ্ঠায় আল্লাহর রাসূল (সা.)-এর উত্তরসূরী হিসেবে জালেমের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে দিন প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখার আহবান -ডাঃশফিকুর রহমান

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান বলেন, স্বাধীনতা মানুষের আল্লাহ প্রদত্ত জন্মগত অধিকার। মহান আল্লাহ মানুষকে স্বাধীন সত্বা দিয়ে সৃষ্টি করেছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও এখনও একটি শিশু অসহায়। জুলুম, নিপীড়ন, নির্যাতন, খুন, গুম, হত্যাকান্ড এবং অবরুদ্ধ বাকস্বাধীনতা বাংলাদেশের বর্তমান সমাজচিত্র। তিনি বলেন, ‘যুগে যুগে সকল নবী ও রাসূলগণ তাদের দায়িত্ব ও দিনের পথের এ ভূমিকা ছিল ঐতিহাসিক। ইসলামী আন্দোলনের সকল স্তরে কর্মীদেরকে পরিকল্পিতভাবে ঈমানের দাবি পূরণের জন্য হযরত ইব্রাহীম (আ.)-এর উত্তরসূরি হিসেবে ইউনিট থেকে শুরু করে কেন্দ্র পর্যন্ত ময়দানের সকল স্তরের ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করতে হবে। তাহলেই আমরা শীঘ্রই বিজয় অর্জন করতে পারবো।’

তিনি বলেন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে অকুতভয় সৈনিক হয়ে বাতিলের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। শহীদ মালেকের জন্মভূমিতে আজকে আমরা দাঁড়িয়ে আবারো শপথ গ্রহণ করি। তিনি একটি সুখী-সমৃদ্ধ সমাজ প্রতিষ্ঠায় ইসলামী আন্দোলনে রুকনদেরকে আল্লাহর রাসূল (সা.)-এর উত্তরসূরী হিসেবে জালেমের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে দিন প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

খুলনা মহানগরী জামায়াতে ইসলামীর উদ্যোগে দিনব্যাপী বার্ষিক রুকন সম্মেলন-২০২২ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহবান জানান। বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও খুলনা মহানগরী আমীর মাওলানা আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলমীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এ এইচ এম হামিদুর রহমান আযাদ। জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্য ও খুলনা মহানগরী সেক্রেটারি অধ্যাপক মাহফুজুর রহমানের পরিচালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের আমীর মুহাম্মদ সেলিম উদ্দীন, কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ও চট্রগ্রাম মহানগরী আমীর মুহাম্মদ শাহজাহান, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও রাজশাহী মহানগরী আমীর ড. কেরামত আলী। এসময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য ও খুলনা মহানগরী নায়েবে আমীর মাস্টার শফিকুল আলম, সহকারী সেক্রেটারী এ্যাডভোকেট মুহাম্মদ শাহ আলম এ্যাডঃ শেখ জাহাঙ্গীর হুসাইন হেলাল, শ্রমিক কল্যাণ খুলনা মহানগরী সভাপতি আজিজুল ইসলাম ফারাজী প্রমূখ। জুম এর মাধ্যমে ভার্চ্যুয়ালীভাবে এ রুকন সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

আমীরে জামায়াত ৯০% মুসলমানের দেশে সংবিধান হবে আল কুরআন উল্লেখ করে তিনি রুকনদের উদ্দেশ্যে বলেন, আল্লাহ চিরঞ্জীব, চিরস্থায়ী। এ দুনিয়া থেকে আমাদেরকে একদিন চলে যেতে হবে, কিয়ামতের ময়দানে ভাল এবং মন্দ কাজের হিসাব দিতে হবে। আল্লাহ তায়ালা তার দ্বীনকে কায়েম করার জন্য রাসূলকে পাঠালেন। তিনি জাহেলী সমাজ দূর করে একটি সুখী সমৃদ্ধ সমাজ উপহার দিলেন। তিনি নিকৃষ্টতম সমাজকে উৎকৃষ্টভাবে তৈরী করেছেন। আমাদের সেই কাজ করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। মনে রাখতে হবে আমরা কেউ আরাম আয়েশ ও শান শওকতের মধ্যে থাকতে আসিনি। আমরা এসেছি দুনিয়ায় আল্লাহর রেজামন্দির হাসিল করে আখেরাতে এর সুফল পাওয়ার জন্য। ইব্রাহিম (আ.)-এর সন্তান হিসেবে আমরা আমাদের শপথকে আকড়ে ধরি এবং আমাদের স্ত্রী, সন্তানদেরকে এ কাফেলায় শরিক করিয়ে জান্নাতের দিকে নিয়ে যায়।

পবিত্র কুরআনের বাণী উল্লেখ করেন আমীরে জামায়াত বলেন, -‘পৃথিবীতে যা কিছু রয়েছে, আল্লাহ তার সবই তোমাদের অধীন করে দিয়েছেন’। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তায়ালা এরশাদ করেন-‘আর তোমাদের কী হলো যে, দুর্বল পুরুষ নারী ও শিশুদের পক্ষে- যারা বলে-‘হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদের অত্যাচারীদের এই জনপদ থেকে উদ্ধার কর। তোমার পক্ষ থেকে আমাদের জন্য অভিভাবক পাঠাও এবং তোমার পক্ষ থেকে আমাদের জন্য সাহায্যকারী পাঠাও’। এ কথা প্রনিধান যোগ্য যে কোন অত্যাচারী শাসক চিরস্থায়ী ক্ষমতায় থাকতে পারে না। আল্লাহ তায়ালা মুসাকে পাঠিয়েছিল ফিরাউনের কাছে, ফিরাউন অত্যাচারী হয়ে গেছে। মুসা (আ.) আল্লাহর হুকুম পালন করলেন। মুমীনদেরকেও আল্লাহর হুকুম পালন করতে হবে এবং প্রানন্তকর প্রচেষ্টায় ও আল্লাহর মদদে জালিমের মসনদ ভেঙ্গে পড়বেই। এ জন্য আমাদের ধৈর্যের সাথে দ্বীন কায়েমের কাজ চালিয়ে যেতে হবে। বিচলিত হলে চলবে না। কেননা আল্লাহ ধৈর্য্যধারণ কারীকে পছন্দ করেন।