কেড়ে নেওয়া হলো পাকিস্তান সমর্থকের পতাকা-জার্সি

স্টেডিয়ামে বাংলাদেশিরা পাকিস্তান দলকে সমর্থন করছে—বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক তোলপাড় চলছে। নিজ দেশের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে পাকিস্তান দলের সমর্থন করা বাঙালিদের নৈতিক মূল্যবোধ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। এ অবস্থায় গতকাল সোমবার মিরপুরের শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে পাকিস্তান-বাংলাদেশের তৃতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ শুরু হয়। ম্যাচ শুরুর আগে স্টেডিয়ামের সামনে পাকিস্তানের সমর্থক বাঙালিদের কাছ থেকে জার্সি ও পতাকা কেড়ে নেওয়ার মতো ঘটনা ঘটে।

গতকাল খেলা শুরুর আগে মিরপুর স্টেডিয়াম গেটের সামনে কিছু তরুণকে দেখা যায় ব্যানার হাতে দাঁড়িয়ে থাকতে। তারা পাকিস্তানি পতাকা নিয়ে স্টেডিয়ামে আসা বাংলাদেশি নাগরিকদের প্রতিরোধের ঘোষণা দেয়। তারা গ্যালারিতে পাকিস্তানি পতাকা ও জার্সি পরিহিত বাংলাদেশি সমর্থক দেখলে প্রতিবাদ জানাবে বলে জানায়।

এর কিছুক্ষণ পরই ওই সমর্থকদের হৈচৈ করতে দেখা যায়। তখন ভিড়ের মধ্যে একজনের হাতের পতাকা কেড়ে নেওয়া হয়। এর পরেই আরেকজনকে দেখা যায় জার্সি আড়াল করে যাচ্ছে। পরে সেটি খুলে দেখা যায় পাকিস্তানের জার্সি। বাঙালি হয়ে পাকিস্তানের সমর্থন বিষয়ে প্রশ্ন করে ওই ভক্তকে। এরপর তার জার্সি কেড়ে নেওয়া হয়। তাকে আটক করা হলেও জার্সিটা নিয়েই ছেড়ে দেওয়া হয়। বাংলাদেশি সমর্থকরা এ সময় জয় বাংলা স্লোগান দিতে থাকে।

‘পাকিস্তানি দালাল রুখবে তারুণ্য’ ব্যানারে স্টেডিয়ামের গেটে অবস্থান নেওয়া একটি সংগঠনের আহ্বায়ক হামজা রহমান অন্তর বলেন, ‘৩০ লাখ শহীদ ও দুই লক্ষাধিক মা-বোনের আর্তনাদের বিনিময়ে পাওয়া স্বাধীনতা। সেই স্বাধীনতার শত্রু, যারা আজও রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা চায়নি, ক্ষতিপূরণ দেয়নি। যারা আজও ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে, তাদের হয়ে এদেশীয় দালাল গোষ্ঠীকে একাত্তরের মতোই প্রতিহত করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ আমরা।’

উৎসঃ kalerkantho