কাল ম্যাচ শেষে মুস্তাফিজকে ডেকে নিয়ে যা বলেছিলেন ম্যাক্সওয়েল

মুস্তাফিজকে ডেকে নিয়ে যা বলেছিলেন ম্যাক্সওয়েল-বোলিং ও ফিল্ডিংয়ে দূর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়েও হেরে গেল মুস্তাফিজের দল রাজস্থান রয়্যালস। ভিরাট কোহলির রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর কাছে ৭ উইকেটে হেরেছে তারা। ম্যাচের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে এভিন লুইস এবং জয়সওয়াল ব্যাট হাতে ঝড় তুলার সময়

মনে হচ্ছিল দুশোরও বেশি রান সংগ্রহ করতে যাচ্ছে রাজস্থান। কিন্তু শেষদিকে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে মাত্র ১৪৯ রানেই থেমেছে মোস্তাফিজুর রহমানের দলের ইনিংস। দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত ম্যাচের শুরুতে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন বেঙ্গালুরুর অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রাজস্থানের দুই ওপেনার এভিন লুইস এবং জয়সওয়াল ক্রিজে রীতিমতো ঝড় তুলেন। ওপেনিং জুটিতে মাত্র ৮.২ ওভারে তুলেন ৭৬ রান। ২২ বলে ৩১ রান তুলে জয়সওয়াল আউট হলেও তাণ্ডব থামাননি লুইস। মাত্র ৩৭ বলে ৫ চার এবং ৩ ছয়ে তুলেন ৫৮ রান। এ সময় রাজস্থানের সংগ্রহ ছিল ১১ ওভারে ১০০ রান।

যেই না লুইস সাজঘরে ফিরলেন, এরপর থেকেই ব্যাট হাতে রান তুলতে যেন ভুলেই যান রাজস্থানের ব্যাটসম্যানরা। শেষদিকে দুই অঙ্কের ঘর স্পশ করতে পেরেছেন মাত্র দুজন ব্যাটসম্যান। ১৯ রানে স্যামসন এবং ১৪ রানে আউট হন ক্রিস মরিস। বেঙ্গালুরুর হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন হার্শাল প্যাটেল। এছাড়া দুটি করে উইকেট নেন যুগবেন্দ্র চাহাল ও শাহবাজ আহমেদ।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দূ্র্দান্ত সূচনা করেন ব্যাঙ্গালোরের দুই ওপেনার কোহলি ও পাডিকেল। কিন্তু মোস্তাফিজ যেন চমক দেখাবার জন্যেই প্রস্তুত ছিলেন। নিজের ২য় ওভারে মাত্র ৬ রান খরচ করে বোল্ড করেন পাডিকেলকে। এতে করে জয়ের আশা দেখেছিলো মোস্তাফিজরা। এরপরে ফিল্ডিংয়েও কারিশমা দেখান মুস্তাফিজ। দারুণ এক ছক্কা আটকে দেন দ্য ফিজ। এতে করে নেটিজনদের প্রশংসায় ভাসছেন তিনি।

এরপরে নিজের ৩য় ওভারে আরও এক উইকেট নিয়ে বসেন কাটার মাস্টার। কিন্তু ব্যাটে আগুনের ফুলকি লাগিয়ে মাঠে নেমেছিলেন ম্যাক্সওয়েল। তার ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৭.১ ওভারেই জয়ের বন্দরে পৌছে যায় ব্যাঙ্গালোর। ৩০ বলে ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন ম্যাক্সওয়েল। এছাড়াও শ্রিকার ৪৪ ও দলপতি কোহলি করেন ২৫ রান।

রাজস্থানের হয়ে ২ টি উইকেট নেন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ। ম্যাক্সওয়েল যখন ছিল উইকেট চরম ফর্মে তখন মুস্তাফিজ ২ ওভার করে দিয়েছেন মাত্র ১০ রান। মুস্তাফিজের এমন বোলিংয়ে মুগ্ধ হয়ে ম্যাচ শেষে ম্যাক্সওয়েল তার সাথে হাত মিলিয়ে কংগ্রেচুলেশন জানান।