আফ গানি স্থানে ‘সহশিক্ষা’ নিষিদ্ধ করলো তা লেবান

আ ফগা নিস্তানের রাজধানী কা বুলে আবারও বি স্ফো রণের ঘ টনা ঘটল। স্থানীয় সময় গতকাল রবিবার সন্ধ্যার দিকে কা বুল বিমানবন্দরের অদূরে আবাসিক ভবনে একটি রকেট আ ঘাত হানে।

এতে এক শিশুর মৃ ত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে পুলিশ।প্রায় একই সময়ে কা বুলে বি স্ফো রক পদার্থবোঝাই একটি গাড়ি লক্ষ্য করে ড্রোন হা মলা চালিয়েছে যু ক্তরাষ্ট্র।

এই ড্রোন হা মলার সঙ্গে আবাসিক ভবনে বি স্ফোরণের কোনো স ম্পর্ক রয়েছে কি না, তা গতকাল রাত ১টা পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে তা লে বানের পক্ষ থেকে গতকাল জানানো হয়েছে, সরকারি ও বেসরকারি সব স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলেমেয়েদের একসঙ্গে পড়াশোনায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে তালেবান।

পাশাপাশি এটিকে ‘সমাজে পচন ধরার মূল’ বলে বর্ণনা করা হয়েছে। এখন থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছেলে ও মেয়েদের একই শ্রেণিকক্ষে পড়ানো যাবে না।

তবে নারীরা এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতে পারবেন। সমাজে পচন ধরার মূলেই রয়েছে সহশিক্ষা কার্যক্রম। তাই এটা বন্ধ করতেই হবে। নারী শিক্ষার্থীদের পড়াবেন কেবল নারী শিক্ষকরাই।

আবার কোনো ছেলেকে তারা পড়াতে পারবেন না। ছেলেদের ক্ষেত্রে কেবল পুরুষ শিক্ষকরা পাঠদান করবেন। তা লেবানের এমন চমৎকার সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন সে দেশের অভিভাবকরা।

তা লেবান আরো জানিয়েছে, তাদের সর্বোচ্চ নেতা হা ইবাতুল্লাহ আ কুন্দজাদা শিগগিরই জনসমক্ষে আসবেন। বর্তমানে কান্দাহারে অবস্থান করছেন তিনি।

কা বুল বিমানবন্দরের আশপাশে যেকোনো সময় আবারও হা মলা হতে পারে—মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের এমন স তর্কবা র্তার কয়েক ঘণ্টা পরেই গতকালের বি স্ফো রণের ঘ টনা ঘটে।

বি স্ফোর ণের শব্দটি আসে বিমানবন্দরের উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে।হা মলার শি কার হওয়া ভবন ও কাবুল বিমানবন্দরের দূরত্ব প্রায় তিন মাইল।

বি স্ফো রণের পর টুইটারে একটি ফুটেজ পোস্ট করেন সাংবাদিক শাফি করিমি। ফুটেছে দেখা যায়, একটি ভবন থেকে ব্যাপক পরিমাণে কালো ধোঁ য়া নি র্গত হচ্ছে।

আশপাশের ভবনের ছাদে অনেক মানুষ ছোটাছুটি করছে। ভবনের নিচেও অনেক মানুষকে ছোটাছুটি করতে দেখা গেছে। বি স্ফো রণের পরেই কা বুলের পুলিশপ্রধান রশিদ জানান, প্রাথমিকভাবে এক শিশুর মৃ ত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে।