যারা ঢাকা ছাড়ছেন তাদের উদ্দেশ্য সরাসরি যা বললেন ডিএমপি কমিশনার!

ঢাকা ছাড়ছেন তাদের উদ্দেশ্য সরাসরি যা বললেন ডিএমপি কমিশনার-কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে লাখ লাখ মানুষ নাড়ির টানে ঢাকা ছাড়ছেন। পরিবার বা আত্মীয় স্বজনের সঙ্গে ঈদ উদযাপনের জন্য ঢাকার বাড়িঘর ছেড়ে গ্রামে ছুটছেন অনেকে। তাদের উদ্দেশ্য ঢাকা মহানগর

পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেছেন, ঢাকা শহরের লাখ লাখ বাড়িঘর পাহারা দেওয়া পুলিশের পক্ষে অসম্ভব একটি ব্যাপার। সেক্ষেত্রে যার সম্পদ তাকেই প্রাথমিক নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করতে হবে। মঙ্গলবার (২০ ‍জুলাই) দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে

আয়োজিত ঈদ কেন্দ্রিক নিরাপত্তা সংক্রান্ত এক সংবাদ সম্মেলনে কমিশনার এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বিশেষ করে বাড়িঘর ছাড়ার সময় নিরাপত্তাপ্রহরী ও প্রতিবেশিকে বিষয়টি বলা যেতে পারে। এছাড়াও ঢাকায় যেসব আত্মীয়-স্বজন অবস্থান করবেন তাদের কাছেও নগদ টাকা ও

স্বর্ণালঙ্কারসহ গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ রাখা যেতে পারে। শফিকুল ইসলা বলেন, নিজস্ব প্রতিষ্ঠান, আবাসন, অ্যাপার্টমেন্ট, বিপনী বিতানসমূহে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত সিকিউরিটি গার্ডের ডিউটি জোরদার করা এবং যেকোনো ধরনের অবৈধ অনুপ্রবেশ রোধে দিবারাত্র ২৪ ঘণ্টা নজরদারির ব্যবস্থা রাখা।

উক্ত সিকিউরিটি গার্ডের ডিউটি তদারক করার জন্য মার্কেট মালিক সমিতি ফ্ল্যাট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ইত্যাদি কর্তৃক তদারকি কমিটি করে দিবারাত্র ২৪ ঘণ্টা পালাক্রমে উক্ত কমিটি দায়িত্ব পালন করবেন। তিনি আরও বলেন, সিসি ক্যামেরার ক্ষেত্রে ধারণকৃত ভিডিও হার্ড ডিস্কে ঠিকমত রেকর্ড হচ্ছে কিনা তা নিয়মিত পরীক্ষা করুন।

প্রতিষ্ঠানের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীকে একসাথে ছুটি প্রদান না করে একটি অংশকে দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত রাখা, যাতে করে তারা প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা তদারকি করতে পারেন। মূল্যবান সামগ্রী যেমন স্বর্ণালংকার, দলিল, অর্থ ইত্যাদি নিরাপদ হেফাজতে রাখুন এবং তালাবদ্ধ করুন।

কাছের আত্মীয় স্বজনের কাছে রাখুন অথবা ব্যাংক লকারের সহায়তা নিন। বাসা-বাড়ি ত্যাগের পূর্বে রুমের দরজা-জানালা সঠিকভাবে তালাবদ্ধ করুন। যে সমস্ত দরজা জানালা দুর্বল অবস্থায় আছে তা মেরামতের মাধ্যমে সুরক্ষিত করে নিন। প্রয়োজনে একাধিক তালা ব্যবহার করুন।’- যোগ করেন ডিএমপি কমিশনার।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, মহল্লা ও বাড়ির সামনে সন্দেহজনক কাউকে ঘোরাফেরা করতে দেখলে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ি ও থানাকে অবহিত করুন। মহামারি করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদ-উল-আযহা উদযাপন করতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ সম্মানিত ধর্মপ্রাণ নাগরিকবৃন্দকে অনুরোধ জানাচ্ছে।bd24live