বাংলাদেশে ভোট প্রচার: প্রধানমন্ত্রীর পাসপোর্ট, ভিসা বাতিলের দাবি মমতার

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বাংলাদেশের ওড়াকান্দিতে মতুয়া সম্প্রদায়ের ভোট টানার জন্যে তাঁর ভাষণ এবং অভিসন্ধি সম্পর্কে মমতা বলেন, দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী আইনের উর্ধ্বে নন। বাংলাদেশে সফরে গিয়ে তিনি পশ্চিমবঙ্গের ভোট নিয়ে বিজেপির হয়ে প্রচার চালিয়েছেন।

অবিলম্বে তাঁর ভিসা ও পাসপোর্ট বাতিল করা হোক। মমতা নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ জানাবার সিদ্ধান্তও নিয়েছেন।

উদাহরণ দিয়ে মমতা বলেন, ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে বাংলাদেশের অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ তৃণমূলের প্রচারে অংশ নেওয়ার জন্যে ভারত সরকার বাংলাদেশ সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছিল ফেরদৌস সম্পর্কে ব্যবস্থা নেওয়ার।

বাংলাদেশ সরকার ফেরদৌস এর পাসপোর্ট ও ভিসা বাতিল করেছিল। এবার প্রধানমন্ত্রীর ক্ষেত্রে তা হবেনা কেন? মমতা বলেন, ফেরদৌস যখন তৃণমূলের রোডশোতে অংশ নিয়েছিল তখন সে নিয়মিত টালিগঞ্জে কাজ করে।

কিন্তু বিদেশি রাষ্ট্রে ভোট প্রচারের অপরাধে তাকে শাস্তির মুখে পড়তে হয়। এবার বাংলাদেশ সফরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী একই কাজ করেছেন।

তাহলে কেন তাঁর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবেনা। মমতা জানান, প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ থাকাকালীন তাঁরা একটি কথাও বলেননি কূটনৈতিক শিষ্টাচার মেনে। এবার তাঁরা প্রধানমন্ত্রীর শাস্তি কামনা করছেন।

সুত্রঃ মানবজামিন