গাঁজা সেবনের পর শরীর নিস্তেজ হয়ে যায় কেন?

গাজাসহ সকল মাদকই একেক ধরণের ওষুধ৷ ওষুধ যেভাবে শরীরে কাজ করে; উদাহরণস্বরূপ: নাপা জ্বর কমায়, সেকলো এসিডিটি কমায়, হিসটাসিন/ফেক্সো এলার্জি-সর্দি-কাশী কমায়; ঠিক তেমনি মাদকও শরীরের উপর বিভিন্ন প্রভাব ফেলে৷ তবে যে প্রভাবেেে র জন্য মানুষ গাজা/মাদক খেতে/নিতে পছন্দ করে, তা হল সাময়িক উত্তেজনা৷

এটি একটি গাজা/গান্জা/গঞ্জিকা গাছ, বৈজ্ঞানিকভাবে যাকে ক্যানাবিজ বলা হয়৷ গাজার যে উপাদানগুলো ওষুধের মত কিংবা মাদকের মত কাজ করে সেগুলো হল:

টেটরাহাইড্রোক্যানাবিনল, ক্যানাবিডিওল, ক্যানাবিনল, টেটরাহাইড্রোক্যানাবিভারিন উল্লেখ্য, এসকল উপাদান মেডিকেল সাইন্সে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়৷ কিন্তু, মানুষ বাড়তি উত্তেজনা লাভ করার জন্য এগুলোকেই মাদক হিসেবে ব্যবহার করে৷ নিচের ছবিতে দেখবেন, মাদক সেবী মূলত ওষুধকেই মাদক হিসেবে ব্যবহার করছে৷

আমরা মাদকের ইংরেজি হিসেবে Drugs (ড্রাগস) ব্যবহার করে থাকি৷ কিন্তু, ড্রাগস মানে মুলত ওষুধ৷ ওষুধ এবং মাদকের ভিতর পার্থক্য হল একটা চিকিৎসার উদ্দেশ্য, অন্যটি বিনোদন/অনন্দ লাভের উদ্দেশ্য৷ একটি পরিমিত বা খুব সামান্য মাত্রায়, অন্যটি অত্যাধিক মাত্রায়/ক্ষতিকর মাত্রায় ব্যবহৃত হয়৷

মাদক শরীরেই স্নায়ুতন্ত্রকে উত্তেজিত করে৷ ফলে স্নায়ুকোষে থাকা নিউরোট্রান্সমিটার যেমন: ডোপামিন, সেরোটোনিন, ইত্যাদি নিঃসরণ হয়৷ এই নিউরোট্রান্সমিটারগুলোই মানুষের আবেগ-অনুভুতি-উত্তেজনার জন্য দায়ী৷

কিন্তু, এই নিউরোট্রান্সমিটারগুলো আপনার আমার শরীরে অফুরন্ত নয়, বরং সীমিত৷ মাদক ব্যবহারেের ফলে শরীরে থাকা নিউরোট্রান্সমিটারগুলো ব্যাপকহারে নিঃসরণ হতে থাকে ফলে তখন উত্তেজনাও চরম পর্যায়ে থাকে৷ যেে জিনিস একটা নির্দিষ্ট পরিমাণেে শরীর থেকে নিঃসৃত হয়, সেটাকে আপনি যদি মাদক/গাজা ব্যবহার করে শরীরকে বাধ্য করেন বেশি বেশি নিঃসরণ করতে, এবং সব একসময়েে খরচ করে ফেলেন, তাহলে পরবর্তীতে শরীরে তার একটা ঘাটতি তৈরী হবে এটাই স্বভাবিক৷

এএজন্য মাদক ব্যবহার করে সাময়িক উত্তেজনা পাওয়া গেলেও পরবর্তীতে নিউরোট্রান্সমিটারের যে সংকট তৈরী হয়, তার ফলেে শরীর নিস্তেজ ও বিষন্ন হয়ে যায়৷ আপনার শরীর প্রাকৃতিক ভাবে যতটা খুশি থাকে ততটুকু নিয়েই সন্তুষ্ট থাকুন৷ কৃত্রিম সুখ পেতে চাওয়াটা শরীরের উপর এক প্রকার অত্যাচার এবং এর ফলেই আপনি পরবর্তীতে বিষন্নতায় ভোগেন৷

তবে মাদকের সবচেয়ে বাজে দিক হল মাদকসহনশীলা (Tolerance/Resistance) আপনি খেয়াল করবেন, মাদকসেবীরা প্রথম দিকে যতটা মাদক গ্রহন করতো, এক সময় সেই পরিমাণ মাদক গ্রহন করে শরীরে আর আগের মত উত্তেজনা তৈরী হয়না৷

এজন্য তারা ক্রমাগত বেশি পরিমাণ মাদক ব্যবহার করতে থাকে৷ এর কারণ হল, শরীরে মাদকের প্রতি সহনশীলতা তৈরী হয়৷ মাদকের ফলে স্নায়ুকোষ থেকে আগে যে পরিমাণ নিউরোট্রান্সমিটার নিঃসরণ হতো, এ়খন ততটা হয়না৷ ফলে উত্তেজনা/ অনুভূতি কমে যায়৷ সামগ্রিকভাবে চিন্তা করলে মাদক আপনাকে সুখি করতে পারেনা৷ কারণ, মাদক ব্যবহারেে উত্তেজনা যতটা সুখকর, পরবর্তী বিষণ্নতা ততটাই বিস্বাদের! মোটের ওপর হিসাব করলে: উত্তেজনা+বিষন্নতা=০