বিশ্বকাপ সুপার লিগে বাংলাদেশের ৮ সিরিজের সময়সূচি তালিকা সহ

ওয়ানডে বিশ্বকাপ সুপার লীগ চালু করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। ২৭ জুলাই এক প্রেস বি’জ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই ঘোষণা দিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের অভিভাবক এই সংস্থা। যেখানে অংশগ্রহণ করবে ১৩ টি দল। ৩০ জুলাই ইংল্যান্ড – আয়ারল্যান্ড সিরিজ দিয়ে শুরু এই টুর্নামেন্টর।

২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপকে সামনে রেখে বিশ্বকাপ সুপার লিগ চালু করেছে আইসিসি। আইসিসির পূর্ন সদস্যের ১২ দল ও ২০১৫-১৭ ক্রিকেট সুপার লিগের চ্যাম্পিয়ন নেদারল্যান্ডস অংশ নিবে৷ যেখান থেকে শীর্ষ ৭ দল সরাসরি ২০২৩ বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পাবে। বাকি দলগুলোকে লড়তে হবে বাছাইপর্বে।

বিশ্বকাপ সুপার লিগের অধীনে প্রতিটি দল মোট ৮টি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলবে, যার চারটি হোম সিরিজ এবং চারটি অ্যাওয়ে সিরিজ। সবগুলো সিরিজ হবে ৩ ম্যাচের। অর্থাৎ মোট ম্যাচ খেলবে ২৪ টি।

ওয়ানডে সুপার লিগে ১২ টি প্রতিপক্ষের সবার সাথে কোন দল খেলার সুযোগ পাচ্ছেনা। ৮ টি সিরিজ হওয়ায় প্রত্যেক দল ৮ টির বিপক্ষে খেলবে । তবে একটা দল ওয়ানডে লিগের বাহিরেও সিরিজ খেলার সুযােগ পাবে।

সে হিসেবে বিশ্বকাপ সুপার লিগে বাংলাদেশ যে ৮ টি দলের বিপক্ষে খেলবে সে দেশ গুলাে হলাে : ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, জিম্বাবুয়ে, আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ড ।

মে মাসে স্থগিত হওয়া টাইগারদের আয়ারল্যান্ড সফর দিয়ে শুরু হতো বিশ্বকাপ সুপার লিগের মিশন। ক’রোনার কারণে স্থগিত হওয়া এই সিরিজ পরবর্তীতে খেলবে টাইগাররা। এছাড়াও অন্যান্য সিরিজগুলোরও সময় পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়েছে আইসিসি। তবে আগের সূচী অনুযায়ী পরবর্তী সিরিজগুলার সময় নিম্নে দেওয়া হলো।

• ৪ হোম সিরিজ

ডিসেম্বর ২০২০, বাংলাদেশ – শ্রীলঙ্কা

জানুয়ারী – ফেব্রুয়ারী ২০২১, ওয়েস্ট ইন্ডিজ – বাংলাদেশ

অক্টোবর ২০২১, বাংলাদেশ – ইংল্যান্ড

ফেব্রুয়ারি – মার্চ ২০২২ আফগানিস্তান – বাংলাদেশ

• ৪ অ্যাওয়ে সিরিজ

ফেব্রুয়ারি – মার্চ ২০২১, নিউজিল্যান্ড- বাংলাদেশ

জুন – জুলাই ২০২১ বাংলাদেশ – জিম্বাবুয়ে

মার্চ ২০২২, বাংলাদেশ – দক্ষিণ আফ্রিকা

এর বাইরে এর বাহিরে খেলার সুযােগ হচ্ছে না অস্ট্রেলিয়া, ভারত, পাকিস্তান ও নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে। তবে এই চার দেশের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে কোন বাধা নেই বাংলাদেশের। সেক্ষেত্রে ম্যাচ গুলাে ওয়ানডে সুপার লিগের অন্তর্ভুক্ত হবে না।