বন্যাদুর্গত ব্যক্তিদের পাশে দাঁড়ানোর আহবান

দেশের বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতিতে লাখ লাখ মানুষ পানিবন্দী হওয়ায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এবং বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান ১৮ জুলাই ২০২০ এক বিবৃতি প্রদান করেছেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, “প্রবল বর্ষণ এবং পাহাড়ি ঢলের কারণে দেশের অনেক নদ-নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ভারত ও বাংলাদেশের উপর দিয়ে প্রবাহিত বিভিন্ন নদ-নদীতে দেয়া ভারতের বাঁধগুলো খুলে দেয়ায় বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় নদ-নদীর ভাঙ্গণও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, মানিকগঞ্জ, জামালপুর, টাঙ্গাইল, বগুড়া ও সিরাজগঞ্জসহ দেশের অনেক জেলায় বন্যার পানিতে বাড়ি-ঘর ও জমির ফসল ডুবে যাওয়ায় মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়েছে। অব্যাহতভাবে পানি বৃদ্ধির ফলে কৃষকগণ উঁচু জায়গায় অবস্থান নিতে পারলেও হাঁস-মুরগি ও গবাদি পশু নিয়ে মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছে।

বন্যা কবলিত অঞ্চলে খাদ্য ও বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে। পানিবাহিত নানা রোগ-ব্যাধি ছড়িয়ে পড়েছে। বন্যা কবলিত এলাকায় প্রয়োজনের তুলনায় সরকারি সাহায্য একেবারেই অপ্রতুল। দেশের এ দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে সাহায্য নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দল-মত নির্বিশেষে সকলেরই এগিয়ে আসা উচিত। সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত বন্যার্তদের সাহায্যার্থে কোনো তৎপরতা জনগণের নিকট দৃশ্যমান হয়নি।

সরকারের এ ভূমিকা জনগণকে বিস্মিত করেছে। সরকারের উচিত দ্রুত জনগণের পাশে দাঁড়ানো। বন্যাদুর্গত ব্যক্তিদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমি সমাজের বিত্তশালী ব্যক্তিবর্গ এবং বিশেষভাবে জামায়াতের সর্বস্তরের জনশক্তিকে বন্যার্তদের সাহায্যার্থে চলমান তৎপরতা আরো বৃদ্ধি করার ও তা অব্যাহত রাখার আহবান জানাচ্ছি।”