আলী আজম মুকুল এমপির ব্যতিক্রমি উদ্যোগে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসার জোয়ার

ভোলা-২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব আলী আজম মুকুল এমপি। করোনার এই মহাবিপদের সময় তৃণমূল থেকে উঠে আসা এই রাজনীতিবিদ মানুষের বিপদে ঢালস্বরূপ ত্রাণকর্তা হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন। প্রায় প্রতিদিন বোরহানউদ্দিন ও দৌলতখান উপজেলার কোথাও না কোথাও ত্রাণ বিতরণ করে চলছেন।

রাত -দিন শুধুই তার ত্রাণ বিতরণের কাজ চলছে। তার এসব কাজ মানুষ যতই দেখছে ততই অবাক হচ্ছে। এলাকাবাসির প্রতি একজন এমপির এতটা ভালোবাসা আর যেই ভাবে গ্রামপর্যায়েও গিয়ে অনেকের খোঁজখবর নিতেছেন প্রতিমুহূর্তে তা এক কথায় রূপকথা কেও হার মানিয়েছে।

সাধারণ মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ শেষে নগদ অর্থ দিয়ে থাকেন এই সাংসদ

নির্বাচিত হওয়ার পর এই তুমুল জনপ্রিয় এই আলী আজম মুকুল এমপি বলেছিলেন, সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। তৃণমূল আ’লীগের সুখে দুঃখে পাশে থাকতে হবে। দলকে শশক্তিশালী করার লক্ষ্য মাঠে কাজ করতে হবে।

খাদ্য সহায়তায় এমপি মুকুল

আ’লীগের উন্নয়নের চিত্র গ্রাম গঞ্জে মানুষের মাঝে পৌঁছাতে হবে। তিনি আরও বলেন, দেখুন আ’লীগ অনেক প্রাচীন ও বৃহৎ দল। এ দলের সাধারন একজন সদস্য হওয়া অনেক গর্বের। তাই এমন কোন কাজ করা যাবে না যা দলের জন্য বদনাম হয়।

আজ বিভীষিকাময় এই পরিস্তিতিতে তিনি তার কথার অক্ষরে অক্ষরে পালন করছেন। উল্লেখ্য গতকাল সাংসদ মুকুল তার নির্বাচনী এলাকায় ত্রাণ বিতরণ শেষে ক্লান্ত হয়ে ফেরার পথে, এক জন বৃদ্ধা নারী পথিমধ্যে সাংসদকে ধুলোময় জীর্ণশীর্ণ শরীরে নিয়েই জড়িয়ে ধরেন। সাংসদ মুকুলও পরম মমতায় আপনজনের ন্যায় হাসিমুখে বৃদ্ধাকে বুকে টেন নেন। সত্যিকথা বলতে এমন অপরূপ দৃশ্য বর্তমান রাজনীতিবিদদের মধ্যে বিরল দৃষ্টান্ত।

এরপরই মূলত সোশ্যাল মিডিয়ায় দলমত নির্বিশেষে অনেককেই ভোলা-২ আসনের এই সাংসদ জনাব আলী আজম মুকুল এমপি কে নিয়ে উচ্চ প্রশংসা করতে দেখা গেছে। অনেকেই বলছেন যেইভাবে তিনি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তা সত্যি অনেক প্রশংসার দাবি রাখে। অনেকেই আবার আলী আজম মুকুল এমপি কে মন্ত্রী হিসেবেও দেখতে চান বলে অভিমত ব্যক্ত করেন। আমরা এই সংসদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎকামনা করি এবং আশা করি এই ভাবেই তিনি মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে কাজ অব্যাহত রাখবেন।