তামিম ও বিরাট কোহলির মধ্যে ভিডিও লাইভ চ্যাটে আলাপচারিতার কিছু মূল পয়েন্ট তুলে ধরা হলো

স্ট্যাম্পের পেছনে মুশফিকের কথা শুনেও অনেক সময় জ্বলে উঠি – বিরাট কোহলি । তামিমকে ধারাবাহিকতার কৌশল ব্যাখ্যা করলেন কোহলি

লকডাউন লাইভে তামিম ইকবালের আজ (সোমবার) রাতের অতিথি ছিলেন বিরাট কোহলি। ভারতের অধিনায়ককে কাছে পেয়ে ব্যাটিং নিয়ে যাবতীয় খুঁটিনাটি প্রশ্ন করেন তামিম। বাংলাদেশের নব্য ওয়ানডে অধিনায়ককে ব্যাটিংয়ের বিভিন্ন কৌশল সম্পর্কে বলেন কোহলি। সময়ের সেরা এই ব্যাটসম্যান কথা বলেছেন নিজের ধারাবাহিকতা নিয়েও।

নিজের খেলাকে অনবরত পরিবর্তন করতে থাকেন কোহলি। যার কারণে প্রতিপক্ষ তাঁকে ভালোমতো বুঝে উঠতে পারে না। প্রতিপক্ষের সমস্ত পরিকল্পনাকে ভেস্তে যেতে দেন কোহলি।

তামিমকে তিনি বলেন, ‘আমি একটা জিনিস বুঝতে পেরেছি, সবসময় একভাবে খেলা উচিৎ না। অনেক ক্রিকেটার আছে যাদের মাইন্ডসেট এমনই। যারা বলে, আমি এভাবেই খেলি।

কিন্তু এভাবে চললে প্রতিপক্ষ আপনাকে অল্প সময়ের মধ্যে পড়ে ফেলবে। তাই আপনাকে খেলার আরও সামনে চিন্তা করতে হবে। এভাবেই আপনি আরও ধারাবাহিক হতে পারবেন।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত ৭০টি সেঞ্চুরি করেছেন ৩১ বছর বয়সী কোহলি। শচিন টেন্ডুলকারের একশ সেঞ্চুরির রেকর্ড ভেঙে ফেলার অপেক্ষায় তিনি। নিজের ব্যাটিংয়ে উন্নতির জন্য সর্বদাই কোচের পরামর্শ নেন ভারতের এই মেগাস্টার।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি মনে করি খেলা পরিবর্তন করার জন্য আপনাকে প্রস্তুত থাকতে হবে। যেকোনো ব্যাটসম্যানের এই ব্যাপারে নিবেদন থাকা উচিৎ। আগে খেলাটা একটু পরিবর্তন করার পর যদি কাজ না হয়, তখন আপনি বলতে পারবেন যে আপনি আগের মতো করে খেলতে চান।

👉বাংলাদেশের মানুষকে কোহলির ঈদের শুভেচ্ছা.. আর যদি কাজ করে তাহলে তো কথাই নেই। আপনার দলের কোচ, ম্যানেজমেন্ট সবাই যা বলবে- সেটা অবশ্যই আপনার ভালর জন্য বলবে। সাথে দলেরও ভালো হবে। তো কেউ যদি এভাবে বলে যে পরিবর্তন করতে, আমি করে ফেলি।’

কোহলির সাথে আলাপচারিতায় তামিম বলেন, ‘বিরাট ভাই, ঈদ আসছে সামনে, তুমি যদি বাংলাদেশের মানুষকে ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে চাও জানাতে পারো।’

কোহলি বলেন, ‘অবশ্যই, আমি সবাইকে সুন্দর একটি ঈদের প্রত্যাশা করে শুভেচ্ছা জানাতে চাই। ঈদ মোবারক।’

পুরো বিশ্ব আক্রান্ত করোনাভাইরাসে। ব্যতিক্রম নয় বাংলাদেশও। কোহলির দেশ ভারতের মত বাংলাদেশেও এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। তবে দ্রুত সবকিছু ঠিক হওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন কোহলি।

এই দুঃসময়ে পরিবারের সাথে সময় উপভোগ করার আহ্বান জানিয়ে কোহলি আরও বলেন, ‘সবাই নিজ নিজ পরিবারের সাথে সময় কাটাচ্ছেন, তা উপভোগ করুন। আমি মন থেকে প্রত্যাশা করি, এই চ্যালেঞ্জের মধ্যেও সবাই হাসিখুশি থেকে এই ঈদ পালন করবেন। সবাই প্রার্থনা করছে, নিশ্চয়ই সবকিছু দ্রুত ঠিক হয়ে যাবে।’

কোহলি বলেন, ‘এটা এমন একটা সময় যেখানে সব ধরনের মানুষ একই কাতারে রয়েছেন। এই প্রার্থনাই করি, এই দুর্যোগ দ্রুত দূর হোক।’

ধন্যবাদ সবাইকে..❤️❤️