বগুড়া-৪ আসনে হিরো আলমসহ মনোনয়ন তুললেন ৯ জন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে মনোনয়নপত্র তুললেন আলোচিত মুখ হিরো আলম। আজ সোমবার দুপুরে নন্দীগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মোছা. শারমিন আখতারের কাছ থেকে বগুড়া-৪ (নন্দীগ্রাম-কাহালু) আসনে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তিনি।এদিকে দুপুর ২টায় সহকারী রিটার্নিং অফিসার

মোছা. শারমিন আখতারের কাছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর নন্দীগ্রাম উপজেলা কমিটির সহসভাপতি আলহাজ্ব মো. ইদ্রিস আলী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।এ ছাড়া জাসদের সংসদ সদস্য এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন, সাবেক বিএনপির সংসদ সদস্য ডা. জিয়াউল হক মোল্লা, বিএনপি নেতা আনিছুর রহমান, স্বতন্ত্রভাবে অংশ নিতে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন জামায়াত নেতা কাহালু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাওলানা তায়েব আলী,

আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যাপক আহছানুল হক, তরিকত ফেডারেশনের কাজী এম এ কাশেম, এন পি পি নেতা আয়ুব আলী মনোনয়নপত্র তুলেছেন।দুপুরে হঠাৎ করেই উপজেলা পরিষদে আসেন অভিনেতা আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম। মহুর্তেই তাকে দেখার জন্য তার সমর্থক, স্থানীয় লোকজন এবং তরুন-তরুণীরা ভিড় করেন।

শুরু হয় হিরো আলমকে নিয়ে মোবাইলে সেলফি ও ছবি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, যোগাযোগ মধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ভিডিও আপলোডের মাধ্যমে যেভাবে ঝড় তুলেছেন ঠিক তেমনি সংসদ সদস্য প্রার্থী হয়ে সারাদেশের মতো বগুড়া-৪ নন্দীগ্রাম-কাহালুতেও আলোচনায় এসেছেন। আসলেই তিনি আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি থেকে মহা জোটের প্রার্থী হতে পারবেন কি-না তা নিয়েও চলছে হিসাব-নিকাশ।

হিরো আলম বলেন, আমি নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়নের জন্য আন্তরিকভাবে কাজ করবো। এ আসনে আমার গ্রহণযোগ্যতা বেশি। বগুড়া-৪ আসনের সাধারণ মানুষ আমাকে ভালবাসেন। ভোটারদের ভালোবাসার প্রতিফলন ঘটাবে এবং আমাকে নির্বাচিত করবে বলেও আমার বিশ্বাস। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।তথ্যমতে, হিরো আলম লাঙ্গল প্রতীকে যে আসনে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন সেই বগুড়া-৪ নন্দীগ্রাম-কাহালু উপজেলা নিয়ে গঠিত এ আসন।

এ আসনে এবার ভোটার রয়েছে ৩ লাখ ১২ হাজার ৮১ জন।ঘোষিত তফসিল অনুযায়ি আগামী ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিল, ২ ডিসেম্বর বাছাই, ৯ ডিসেম্বর প্রত্যাহার এবং ৩০ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ।mt